ফিরে আসার গল্পে তুমি

দিনটা ১৯৯১ সালের ২রা নভেম্বার, শীতের সকাল প্রথম ক্লাস করতে আসা, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) গণিত বিভাগ । সেদিন থেকেই কেন যেন জাবি ক্যাম্পাসের প্রতি এক অদ্ভুত মায়া কাজ করে, ভালো লাগে,‌আর এই ভাললাগা থেকেই কখন যে জাবি ক্যাম্পাসটাকে ভালবেসে ফেলেছি; ঠিক বলতে পারব না। আজ অনেকটা সময় পেরেয়ে গেছে ,আমিও আর আগের মতো নেয়। অথচ তুমি (জাবি) ঠিক আগের মতোই অমলিন রয়ে গেছ । আজ অবধি ক্যাম্পাসে বারবার ফিরে আসতে মন চেয়েছে কিন্তু বাস্ততায় আসা হয়ে উঠিনি । শহরের যান্ত্রিকতায় যদিও আজ আমি আমার না; তবুও ফিরে পেতে চায় -সেই স্বপ্নের দিনগুলি।

সময়টা ঠিক দুপুর গড়িয়ে ,ফোন বাজে-জানতে পারলাম, জাবির গণিত বিভাগের সকলে এক হবে মহামিলনমেলায়। সে সময়ের আনন্দটা ঠিক প্রকাশ করার মত না, সকল বাস্ততা ঝেড়ে ফেলে ভেবেই যারছি , এই মিলনমেলাকে কিভাবে সার্থক মিলনমেলা করা যায় ।সময়ের ঘোরে অনেকটা সময় চলে গেছে বন্ধুদের থেকে-হোক না এই সুযোগে তাদের একটু দেখা। জুয়ামের সহযোগিতায় গণিত বিভাগের সুযোগ্য চেয়ারম্যান ডঃ শরিফের ডাকে পুনর্মিলনী সংক্রান্ত প্রথম মিটিং করি-মে মাসে ।সে মোতাবেক সিধান্ত হয় ডিসেম্বারের কোন এক শুক্রবার মিলনমেলা হোক । তারই পরিপেক্ষিতে ৮ ই ডিসেম্বার রোজ শুক্রবার এই
মহামিলনমেলার আয়োজন করা হয়।

মে মাস থেকেই চলতে থাকে মিলনমেলার প্রস্তুতি। মিলনমেলাকে কেন্দ্র করে বিগত সকল ব্যাচের ছাত্রদের জুয়ামের সহযোগিতায় রেজিস্টেশন সম্পূর্ণ করা হয়। বিভাগের ১ম ব্যাচের ছাত্র জাহের ভাই সহ বন্ধু ডঃ শরিফের সহায়তায় তসলিম (১০),নজ্রুল (১৭) ,রেজা (১৯) এরশাদ (২০) ,শামিম (ডিসি ট্রাফিক),ওয়ালিদ,হানিফ,মনির,আনিস,বিন্দু্ ,‌আসিফসহ আসাদ(২১) ,লিটন (২১) ,মিলু(২২) , আজিজ (২২) ,বিপ্লব(২৩) ,নজরুল (২৫) ,বাপ্পি (২৫) সহ বর্তমানে অধ্যয়নরত ছাত্রদের সহযোগিতায় আজ আমরা একটি সফল অনুষ্ঠান উপহার দেবার দ্বারপ্রান্তে ।আশা করছি খুব ঝাকঝমকপূর্ণ আর সফল মিলনমেলা হবে । মিলনমেলাকে সফল করতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনসহ সবার সহযোগিতা আমাদের একান্ত কাম্য । মিলনমেলাকে যদি আমরা সার্থক ভাবে করতে পারি ,তাহলে আমাদের প্রকৃত সার্থকতা ।

উল্লেখ্য যে, Jahangirnagar University alumni association of mathematics জুয়ামকে কার্যকর সংগঠনে রূপান্তরিত করার উদ্যোগ আমরা নিয়েছি। সে লক্ষে জুয়ামের আজীবন সদস্যর জন্য বিভাগের সুযোগ্য শিক্ষক আমিনুর রহমান বাপ্পি’র নিরালস চেষ্টায় আমরা জুয়ামের আজীবন সদস্য সংখ্যা একটা নির্দিষ্ট সন্তোষজনক সংখ্যাই নিয়ে এসেছি। আমাদের এই প্রচেষ্টা আছে এবং ভবিষ্যৎ ও থাকবে।

আমাদের পরিকল্পনায় জুয়ামের একটা ফান্ড তৈরী করা, যা থেকে গণিত বিভাগের গরিব মেধাবী ছাত্ররা আর্থিক সহায়তা পেতে পারে।এ ব্যাপারে সবার আন্তরিক সহায়তা আমাদের একান্ত কাম্য । বিভাগের সভাপতি ডঃ শরিফকে সামনে রেখে আমরা আমাদের লক্ষ্য পোঁছাব ইনশাআল্লাহ ।

সাক্ষাৎকারঃ তোফায়েল আহমেদ রতন,গণিত বিভাগ,জাবি ২০-তম ব্যাচ

পছন্দের আরো পোস্ট