কুবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি-সম্পাদকসহ ৭ জনকে শোকজ

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান-এর সাথে অসদাচরণ ও সিন্ডিকেট সভায় বাধাদানের অভিযোগে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ৭জনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ইউজিসি চেয়ারম্যানের সাথে অসদাচরণকারীদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ইউজিসির পক্ষ থেকে পাঠানো চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে এই শোকজ দেওয়া হয়।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো: মজিবুর রহমান মজুমদার স্বাক্ষরিত এ শোকজ নোটিশ অভিযুক্ত শিক্ষকদের কাছে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে অভিযুক্ত শিক্ষকদেরকে শোকজের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

অভিযুক্ত শিক্ষকরা হলেন, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো: আবু তাহের; অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও সমিতির সহ-সভাপতি মো: শামিমুল ইসলাম; মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও সমিতির সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান; বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. জি. এম. মনিরুজ্জামান; নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এন. এম. রবিউল আউয়াল চৌধুরী; একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো: আসাদুজ্জামান এবং অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ নাসির হোসাইন।

সূত্রে জানা যায়, গত ১০ মার্চ অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৫তম সিন্ডিকেট সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর ও মহামান্য রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি হিসেবে সিন্ডিকেট সভায় যোগ দিতে আসেন ইউজিসি চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান।

এ সময় অভিযুক্ত ব্যক্তিগণ সিন্ডিকেট অনুষ্ঠানস্থল উপাচার্য বাংলোর মূলফটকে গাড়িসহ প্রবেশে চেয়ারম্যানকে বাধা দেয় এবং তার সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে। যেহেতু অভিযুক্ত ব্যক্তিগণ সিন্ডিকেট অনুষ্ঠানকে বাধাগ্রস্ত ও বানচাল করার চেষ্টা করেছে তাই এহেন আচরণ সরকারী কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ১৯৮৫’র বিধি ৩(বি) মতে অসাদারণযোগ্য অপরাধ।

এমতাবস্থায় কেন অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবেনা তার কারণ আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার অফিসে জমা দেওয়ার জন্য বলা হয়।

জানতে চাইলে শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো: আবু তাহের বলেন, ‘আমরা চিঠি পেয়েছি। যথাসময়ে কর্তৃপক্ষের চিঠির জবাব দেওয়া হবে।’বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো: মজিবুর রহমান মজুমদার বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সভায় বাধা ও ইউজিসি চেয়ারম্যানের সাথে অসদাচরণকারীদের চিহ্নিত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহনে ইউজিসির চিঠির প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ৭জনকে চিহ্নিত করে তাদেরকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে এবং সাত কার্যদিবসের মধ্যে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে।’

পছন্দের আরো পোস্ট