ইসলামী ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজির সমাবর্তন

unnamedশিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ও.আই.সি পরিচালিত ইসলামী ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি (আই.ইউ.টি) ইসলামী উম্মার মধ্যে প্রযুক্তি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় ব্যাপক ভূমিকা পালন করে আসছে। বাংলাদেশ সরকার ২০২১ সালের মধ্যে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে বাংলাদেশকে একটি পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল দেশে রূপান্তির করতে বদ্ধপরিকর।

তিনি বৃহস্পতিবার (০৮ ডিসেম্বর) সকালে গাজীপুরের বোর্ডবাজার এলাকায় অবস্থিত ইসলামী ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিতির বক্তব্যে  এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২০ শতাংশে উন্নিত করতে আই.ইউ.টি বিশেষ অবদান রাখছে।তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, (আই.ইউ.টি) মতো আর্ন্তজাতিকভাবে স্বীকৃত প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে পেড়ে তোমাদের ক্যারিয়ারে একটি মজবুত ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেছো। তিনি বিদেশী শিক্ষার্থীদের বলেন বিশ্ব ব্যাপি তোমাদের অর্জিত মেধা ছড়িয়ে দিতে সচেষ্ট থাকবে।

এসময় বক্ত্যব রাখেন, ওআইসি’র মহাসচিবের পক্ষে বক্ত্যব রাখেন সহকারী মহাসচিব (বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি) মো. নাইম খান, আইইউটি’র গর্ভনিং বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. মো. সাইদ আল আলাম আল জাহারানী, আইইউটি’র উপাচার্য প্রফেসর মুনাজ আহমেদ নূর প্রমুখ।

সমাবর্তনে এক শিক্ষার্থীকে ওআইসি মেডেল এবং চার শিক্ষার্থীকে আই.ইউ.টি মেডেল দেওয়া হয়। বাংলাদেশের আবরার ফায়েজ ওআইসি মেডেল এবং বাংলাদেশের নাগরিক মো. উমর ফারুক, তানভীর হাসান মেহেদি, মো. আসিফ হাসান অনিক ও উগান্ডার নাগরিক হামিছি রামাদানকে আই.ইউ.টি মেডেল দেওয়া হয়।

unnamed-1

পছন্দের আরো পোস্ট