মেট্রোপলিটনে আন্ত:বিভাগ সংসদীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা

debate-2“দক্ষ নেতৃত্ব সৃষ্টি, জ্ঞানার্জন, মেধা এবং মননের বিকাশে বিতর্ক প্রতিযেগিতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। শ্রেষ্ঠ বিতার্কিক হতে হলে নতুন কিছু জানার আগ্রহ থাকতে হবে। যুক্তিবাদী সমাজ গঠনে ও মেধা বিকাশে বিতর্ক প্রতিযোগিতা বিশাল ভূমিকা পালন করে।” মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে লিডারশিপ ডেভেলাপমেন্ট ফোরাম (এলডিএফ)-কর্তৃক আয়োজিত ক্যাম্পাসে সাড়াজাগানো ও মনমুগ্ধকর আন্ত:বিভাগ সংসদীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার ফাইনাল পর্ব ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত থেকে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সালেহ উদ্দিন উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

এলডিএফ এর সদস্য সচিব এবং ইইই বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক নওশাদ আহমদ চৌধুরীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং আইন ও বিচার বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক গাজী সাইফুল হাসান-এর উপস্থাপনায় আন্ত:বিভাগ সংসদীয় বিতর্কের ফাইনাল পর্ব ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিচারকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন ইংরেজি বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক অণিক বিশ্বাস।

বিচারকম-লীর অন্যান্য সদস্যরা হলেন, পরিচালক (প্রশাসন) তারেক ইসলাম, আইন ও বিচার বিভাগের সহকারী অধ্যাপক গাজী সাইফুল হাসান, আইন ও বিচার বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক শের-ই-আলম এবং অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক বিউটি নাহিদা সুলতানা। উক্ত ছায়া সংসদের স্পিকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. নজরুল হক চৌধুরী। তাঁদেরকে সার্বিক সহযোগিতা করেন ঐশী, রাহাত, সালেক ও নওরীন।

মোট ৮টি দলের অংশ গ্রহনের মধ্য দিয়ে দুইদিনব্যাপী সংসদীয় বিতর্কের শেষদিনের আজকের চুড়ান্ত পর্বের বিয়ষ ছিল “বাংলাদেশের জাতীয় বাজেট থেকে বিদেশী ঋণ কর্তন করা উচিত”। পক্ষে ছিল সরকারী দল ব্যবসা প্রশাসন বিভাগ এবং বিরোধী দলের ভূমিকায় ছিল ইইই বিভাগ। চূড়ান্ত পর্বের প্রতিযোগিতায় বিরোধীদল ইইই বিভাগ চ্যাম্পিয়ন হয়।

চ্যাম্পিয়ন দলে বিরোধী দলীয় নেতা, উপনেতা এবং সংসদ সদস্য হিসেবে অংশ গ্রহন করেন যথাক্রমে বিপ্রজিত তালুকদার, আবু মুসা, ফয়সল আহমদ, শিহাব উদ্দিন এবং আদনান শাকিল। রানারআপ দলের সদস্যরা হলেন, ফাহমিদা উসমান দিয়া, মো. সালমান আহমদ, ফাইজা জান্নাত জামালি, পূজা চক্রবর্তী এবং মো. ওবায়দুর রহমান সোহান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ এবং এলডিএফ পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক খন্দকার মাহমুমুদুর রহমান, ব্যবসা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. তাহের বিল্লাল খলিফা, পরিচালক (অর্থ) মিহির কান্তি চৌধুরী, ব্যবসা প্রশাসন বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন, আইন ও বিচার বিভাগের প্রধান শেখ আশরাফুর রহমান, ইইই বিভাগের প্রধান মিয়া মোঃ আসাদুজ্জামান এবং সহকারী রেজিস্টার (জনসংযোগ) লোকমান আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।

unnamed-4

পছন্দের আরো পোস্ট