আনন্দ-কোলাহলে কুবির অর্থনীতি সপ্তাহ’র সমাপ্তি

উৎসবের আমেজে ছেয়ে আছে দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি)। এরই ধারাবাহিকতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সংগঠন ‘অর্থনীতি ক্লাব’ এর উদ্যোগে সপ্তাহব্যাপী ‘অর্থনীতি সপ্তাহ শেষ হলো আজ। বুধবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়ায় সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ পর্দা নামে সপ্তাহ ব্যাপী আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের। এরই সাথে অনুষ্ঠান শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক প্রোগ্রামের অয়োজন করে ক্লাবটি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকালীন এই বিভাগের সপ্তাহব্যাপী আয়োজিত অনুষ্ঠানমালায় ছিল শিক্ষার্থীদের জন্য বিভিন্ন আনন্দ-আয়োজন, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকা-ের মধ্যে ছিল ক্যারাম, দাবা, বিতর্ক, কবিতা আবৃত্তিসহ নানা প্রতিযোগিতা। এছাড়াও ব্যাচভিত্তিক ফুটবল, ক্রিকেট, বলিবল, বিতর্ক ও কুইজ প্রতিযোগিতাও উৎসবের অংশ ছিল।

আজ বুধবার উৎসবের অন্তিম দিনে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ, বিভাগের দশম ব্যাচের নবীন বরণ ও চতুর্থ ব্যাচের বিদায়ী অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আলী আশরাফ। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর কুন্ডু গোপীদাস, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মোঃ জাকির ছায়াদউল্লাহ খান, অর্থনীতি ক্লাবের সভাপতি ও বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন, সহ সভাপতি সহকারী অধ্যাপক নবীন কর কুন্ডু, সাধারণ সম্পাদক আরিফুর ইসলাম রেজা প্রমুখসহ বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

উৎসবমুখর পরিবেশে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য বলেন, ‘তোমরা অধ্যবসায়ের পাশাপাশি এসব আনুষঙ্গিক কার্যক্রমে নিজেদেরকে নিয়োজিত করে মেধার যথার্থ বিকাশ ঘটাবে। তাছাড়া সবাইকে অসাম্প্রদায়িক চেতনা বুকে লালন করে সাম্প্রদায়িকতা পরিহার করা অপরিহার্য। এরই পরিবার, সমাজ, দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিলেই এই শাস্ত্র পড়া সার্থক হবে।’

এছাড়াও বিদায়ী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘ তোমরা যারা পড়াশুনা শেষ করে কর্ম জীবনে প্রবেশ করবে তাদের স্ব স্ব অবস্থান থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে এবং দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে। দেশের খেটে খাওয়া মানুষদের জন্য কাজ করবে। ভুলে গেলে চলবেনা যে তাদের ট্যাক্সের টাকায় তোমরা পড়াশুনা করে গ্রাজুয়েট হয়েছো। তাই কর্মক্ষেত্রের প্রত্যেকটি শাখায় তাদের যথার্থ মূল্যায়ন করবে।’#

আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট