নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসব

IMG_1857সুস্থ্য ধারার চলচ্চিত্র সমাজের আঁধার মুছে আলোকিত ও সৃষ্টিশীল মানুষ ও সমাজ উপহার দিতে পারে। মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় সিনে অ্যান্ড ড্রামা ক্লাব আয়োজিত আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় “স্বল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসব”র পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা এ কথা বলেন।

স্বল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতায় প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকার করে যথাক্রমে “স্ট্যান্ড পয়েন্ট” ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, “বস আইডিয়া” বুয়েট, “সিকিউরিটি” ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক। এছাড়া নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ৪র্থ এবং ৬ষ্ঠ স্থান এবং স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি ৫ম স্থান অধিকার করে। বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন বিশিষ্ট চলচ্চিত্র পরিচালক গাজী রাকায়েত, মোস্তফা সারওয়ার ফারুকী এবং অমিতাভ রেজা।

দেশের ৩৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শতাধিক স্বল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করে। বিভিন্ন পর্ব শেষে ১৬টি চলচ্চিত্র চূড়ান্ত প্রতিযোগিতার জন্য মনোনীত হয় এবং চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা শেষে ৭টি চলচ্চিত্রকে পুরস্কৃত করা হয়। তিন মাসব্যাপী চলা এ প্রতিযোগিতায় শিক্ষার্থীদের চলচ্চিত্র ও নাটক নির্মাণে স্থান, বিষয় নির্বাচন, আলোকচিত্র ও ভিডিও সম্পাদনসহ বিভিন্ন বিষয়ে মৌলিক ও ব্যবহারিক প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

Post MIddle

উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আজিম উদ্দিন আহমেদ। এছাড়া বক্তব্য রাখেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক গৌর গোবিন্দ গোস্বামী ও ছাত্র বিষয়ক পরিচালক অধ্যাপক এম. ইমদাদুল হক।

উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম বলেন, ভাল চলচ্চিত্র ও নাটক সাধারণ মানুষের বিনোদনের সুযোগ সৃষ্টির পাশাপাশি ইতিহাসের ধারক বাহক হিসেবে সমাজকে এগিয়ে নিতে পারে। আমাদের শিক্ষার্থীরা পড়াশুনার পাশাপাশি গান, নাটক কিংবা চলচ্চিত্রের মাধ্যমে সাংস্কৃতিক চর্চা করে থাকে। সাংস্কৃতিক চর্চার জন্য ক্যাম্পাসে তাদের জন্য সব ধরনের ব্যাবস্থা আমরা রেখেছি।

অনুষ্ঠানে সিনে অ্যান্ড ড্রামা ক্লাবের সদস্যরা বিশেষ নাটক মঞ্চস্থ করেন। পরে বিজয়ী ৭টি চলচ্চিত্রের পরিচালকের হাতে ক্রেস্ট, সনদপত্র এবং চলচ্চিত্র তৈরির উপকরণ তুলে দেয়া হয়।

পছন্দের আরো পোস্ট