ফয়সাল হাবিব সানির একগুচ্ছ কবিতা

১. কোনো এক চৈত্রের রোদে

চৈত্রের রোদ উন্মুখ অাজ এ কোন্ দিগন্তবেলায়!
চারদিক নিস্তব্ধ, বাতাস চুপচাপ;
তুমি অার অামি হেঁটে চলা শুধু…
সাথে করে নিয়ে একরাশ উষ্ণ প্রেম।
তোমার হাত ধরে অাকাশ দেখা, দু’জনে কিছুক্ষণ চোখে চোখ রাখা, তোমার চুল এলিয়ে দেওয়া, নরম অাবেগী ঘাসের বুকে পা ছড়িয়ে গল্প করা—
এ এক ব্যতিক্রম অনুভূতি!!
পুরো পৃথিবী হয়তো তাই
অাজ লাগে এতো মায়াবী,
তুমি প্রেমের দেবী অার অামি কবি।

২. তুমি যদি অাসো এখানে

তুমি যদি অাসো এখানে, খানিকক্ষণ বসো অামার পাশে—
তবে অাজ অামি অার জ্যোঁৎস্না দেখব না, তোমার হাঁসির ফোয়ারায় জ্যোঁৎস্না ঝরাব অামার হৃদয়ের কার্নিশে…
তোমার চোখের নির্মোহ মায়ায় অাবিষ্কার করব অামার পৃথিবী; অামার ভালোবাসাকে তোমার হৃদয়ের স্তম্ভে করব স্থাপিত।
তোমার হাতের মুঠোয় বন্দি করব অামার অস্তিত্ব; অামার ঠোঁটের কোণে এঁকে দেব তোমার ভালোবাসার রংধনু।
তোমার মাঝে হারিয়ে দেব নিজেকে; কোনো অসীমের সীমান্তে হারিয়ে যাব অামরা দু’জন— শুধু অাজকের জন্য।

তুমি যদি অাসো এখানে, অামার পাশে বসো খানিকক্ষণ—
তবে অামি পৃথিবীর চোখে হাত বুলিয়ে ঘুম পাড়িয়ে দেব; তোমার পৃথিবীতে করব বিচরণ… তোমার পৃথিবীর প্রেম দু’হাত ভরে লুঠব অামি।
তারপর, অামি অামরা দু’জন হারিয়ে যাব কোনো এক অজান্তে…
না হয় শুধু অাজকের জন্য।

৩. মাতাল প্রেমের কাব্য

তুমি অাছো অার অামি অাছি
অামি অাছি অার তুমি অাছো…
তোমার হৃদয়ে অামি
অামার হৃদয়ে তুমি; হৃদয়ের সমস্ত ভূমিতে তোমার অবাধ বিচরণ…
তোমার প্রেমে মাতাল অাজ অামার হৃদয়ের নেশারা, তোমার হৃদয়ের উদার জমিতে অামার পথচলা অবিরাম…
তুমি মিশে অাছো অামাতে
অামি মিশে অাছি তোমাতে।
অামার সত্তায়, অস্তিত্বে, অামার প্রাণের ঝঙ্কারিত প্রতিটি স্পন্দেন শুধু তুমি অার তুমি;
তুমি ছাড়া বড়ো শূণ্য অামার হৃদয়ভূমি।
অাজ তুমি মানেই অামি
অার অামি মানেই তুমি।
তোমায় নিয়ে অাজ হৃদয়রাজ্যে পাড়ি জমাব…
লিখব মাতাল প্রেমের কাব্য;
বড্ড অভিপ্রায় জাগে অামার—
তোমার দু’চোখের নিশায় অামার পৃথিবীর প্রভাত দেখব।

৪. অবেলায়

বড়ো অবেলায় এলে তুমি
লণ্ঠন জ্বেলে মেয়ে,
অমন করে দেখছো কি গো
অামার পানে চেয়ে!
তোমার অাকাশ অনেক বড়ো
অামার অাকাশ নেই,
এখন অামি হারাতে চাই
শুধু অামিতেই।

৫. অাঞ্চলিক প্রেম

দিন ফুরাইলো দিনের লাহান
রাত ফুরাইলো তেমনি,
তুহি বিনে কও দেহি সহা
মুঁই থাইকি কেমনি!

পিঞ্জর হামার জ্বইলা যায়!
কলজা হামার গইলা যায়!!
তোহা বিনে মুঁই থাকতি পারিনু গো…
ঘোমটা দিয়া কউবে তুহি
হইবা হামার বো।

তোহা বিহনে একলা মুঁই
কিচ্ছুই ভাল্লাগে না হা গো,
বো সেজাইয়া বাসমু বালো
তোহায় মুঁই ওগো!

তোহার পিরীত বিহনে পঁইচা যায়
হামার কলজা-দেহ!!!
তুহি হামার শুদুই হামার
পাইবে না তোহায় কেহো।

৬. স্বপ্নকন্যা

স্বপ্নকন্যা স্বপ্নে আসে, স্বপ্নে অাবার যায়
হৃদয় বনে, আপন মনে কতো না গান গায়।
ফাঁকি দিয়ে যায় সে চলে আমায় করে একা!
বোঝেনা সে তার জন্য প্রেমের কাব্য লেখা।
বোঝেনা সে চোখের ভাষা, হয়ে থাকে স্বপ্ন
হাহাকারে কাঁদে হিয়া, প্রেমের নদী শূণ্য।
স্বপ্নগুলো যায় যে ঝরে, মেলতে পারে না পাখা—
বোঝেনা সে আমার হিয়া তার হিয়াতেই মাখা।
চোখে আমার স্বপ্ন কতো, বুকের মাঝে মায়া
যেদিকে তাকায়, সবদিকে কেবল স্বপ্নকন্যার ছায়া।
বাস্তবে তার হলো না দেখা, তাই স্বপ্নে দিলাম পাড়ি—
জানি আমি, আমার হিয়াতেই স্বপ্নকন্যার বাড়ি।

 

পছন্দের আরো পোস্ট