বাউবিতে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভা

IMG_1936জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রাজনীতিতে কোন দিন আপোস করেননি। অসীম সাহসী ও সকল বাঙালির আস্থার কেন্দ্রবিন্দু ছিলেন তিনি। তিনি স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়েছেন এবং সে স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করেছেন। আর এ ভাবেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রাজনীতিবিদ থেকে রাষ্ট্রনায়ক হয়েছিলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪১ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উ›মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে গাজীপুর ক্যাম্পাসের কনফারেন্স কক্ষে আজ (২৪ আগস্ট) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর জীবন ও আদর্শ নিয়ে আলোচনা সভার প্রধান অতিথি হিসেবে শেখ কবির হোসেন সাবেক চেয়ারম্যান, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি ও সদস্য বাউবি বোর্ড অব গভর্ণরস্ এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, বাঙালি সারা জীবন ধরে কাঁদলেও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ঋণ কোন দিনই শোধ হবে না।

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড. মুনতাসীর মামুন। তিনি তাঁর ভাষণে বলেন, বাঙালি ও বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু যেখানে ছিলেন সেখানেই চিরকাল থাকবেন, এটি ইতিহাসের সত্য কথা। কেননা, ইতিহাস কখনও মিথ্যা কথা বলেনা। তিনি আরও বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির পরিচয় বিশ্বের কাছে তুলে ধরেছেন। বাঙালির প্রতি তাঁর ছিল অগাধ ও গভীর ভালবাসা।

অনুষ্ঠানের সভাপতি বাউবি‘র উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম এ মাননান বঙ্গবন্ধুকে মুক্তিকামী বিশ্বের মহান নেতা হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, তাঁর দূরদর্শী রাজনৈতিক প্রজ্ঞায় সকল বাঙালিকে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ রাষ্ট্র সৃষ্টিতে উদ্বুদ্ধ করেছে। তিনি আরও বলেন, সুকঠিন আত্মত্যাগ, অপরিমেয় দেশপ্রেম, বাঙালির রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তির অবিসম্বাদি নেতা বঙ্গবন্ধু তাই বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি, বাঙালি জাতির জনক। সভাপতির ভাষণে উপাচার্য আরও বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যার পেছনে ষড়যন্ত্রকারী কারা ছিল তা জানার জন্য তাঁদেরকে বিচারের মুখোমুখি করার জন্য এখন কমিশন গঠন করা প্রয়োজন।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন।তথ্য ও গণসংযোগ বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মোঃ আবুল কাসেম শিখদার-এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের নিহত সদস্যদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

পছন্দের আরো পোস্ট