জাবিতে ড. সফিউল্লাহ শোকসভা

DSC_0092জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিশিষ্ট রসায়নবিদ ও বিজ্ঞানী প্রফেসর ড. সৈয়দ সফিউল্লাহ’র শোকসভায় বক্তাগণ বলেছেন, ড. সফিউল্লাহ বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী ছিলেন। বক্তাগণ বলেন, ড. সফিউল্লাহ বিজ্ঞানের শিক্ষক ও গবেষক হওয়া সত্ত্বেও তিনি জ্ঞান বিজ্ঞানের নানাক্ষেত্রে বিচরণ করেছেন। উদার, প্রগতিশীল ও রাজনীতি সচেতন ব্যক্তি হিসেবে ড. সফিউল্লাহর পা-িত্য সর্বজনবিদিত ছিলো।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম ড. সফিউল্লাহকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘আইকন’ হিসেবে অভিহিত করেন। সভাপতির ভাষণে রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য, বর্তমানে বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির বলেন, ড. সফিউল্লাহ ছিলেন ক্ষণজন্মা। তাঁর মৃত্যুর মধ্যদিয়ে দেশের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে, যা পূরণ হবার নয়।

আজ সকাল দশটায় জহির রায়হান মিলনায়তনের সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত এ শোকসভায় অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন রসায়ন বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যাপক মাহবুবুল হক, রসায়ন বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষক ও বর্তমানে গণবিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মেসবাহ উদ্দিন আহমদ, অধ্যাপক ফরিদা আখতার, অধ্যাপক ইউসুফ আলী মোল্লা, অধ্যাপক ড. কাজী আলী আজম, প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক ড. জসীম উদ্দিন আহমদ, তিতুমীর কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আবু হায়দার নাসের, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনিরুজ্জামান, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক মেসবাহ-উস-সালেহীন, দর্শন বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আ ফ ম উবায়দুর রহমান, বাংলা বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আ ফ ম দানীউল হক, সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সলিমউল্লাহ খান, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আবু সাঈদ খান, বিভাগীয় সভাপতি অধ্যাপক ড. মনজুরুল করিম প্রমুখ।

শোকসভা পরিচালনা করেন রসায়ন বিভাগের প্রাক্তন ছাত্র, বর্তমানে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. ওয়াহিদুজ্জামান।উল্লেখ্য, অধ্যাপক ড. সৈয়দ সফিউল্লাহ গত ১১ জুন একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

পছন্দের আরো পোস্ট