আইইউটি’তে ভবিষ্যৎ প্রকৌশলীদের মেলা

ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (আইইউটি) তে সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘সিনোভেশন’ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।  শুক্রবার (২৯ জুলাই) আইইউটি ক্যাম্পাসে চতুর্থবারের মত এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি) এর পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ সম্মেলনের আয়োজন করে।

Post MIddle

সেনোভেশন এর অন্যতম উদ্দেশ্য হল সকল প্রকৌশল বিদ্যায় অধ্যয়নরত ছাত্রদের এক কাতারে নিয়ে আসা যাতে তারা পুর,  পরিবেশ ও স্থাপত্য বিদ্যায় নতুন উদ্ভাবন করতে পারে ও সকলের মাঝে তা ছড়িয়ে দিতে পারে। এবছর পুর ও পরিবেশ প্রকৌশলবিদ্যার এমেলায় ৭টি ইভেন্ট (মেকানিক্স অলিম্পিয়াড, পোস্টার প্রেজেন্টেশান, ট্রাস চ্যালেঞ্জ, কেস স্টাডি এনালাইসিস, ক্যাড কম্পিটিশন, এনভায়রনমেন্টাল ফটোগ্রাফি, শর্টফিল্ম কনটেস্ট) এ অংশগ্রহনের জন্য নাম নিবন্ধন করে ১৮ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ৭০০ জন প্রতিযোগী।

সেনোভেশন এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন বাংলাদেশ এর প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ডঃ শামিম জেড. বসুনিয়া এবং প্রধান পৃষ্ঠপোষক আই.ইউ.টির উপাচার্য প্রফেসর ড. মুনায আহমেদ নূর সহ আরও অনেকে।

প্রধান অতিথি বলেন সেনোভেশন আসন্ন স্নাতকদের একে অপরের সাথে যোগাযোগ করার জন্য একটি বিশেষ প্ল্যাটফর্ম, এখানে তারা তাদের পেশা সংশ্লিষ্ট সমস্যা সমাধান, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণভাবে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করার কৌশল এবং তাদের উচ্চতর লক্ষ্য গুলো স্থির করতে সক্ষম হবে।

প্রধান পৃষ্ঠপোষক আই.ইউ.টির উপাচার্য প্রফেসর ড. মুনাজ আহমেদ নূর বলেন সেনোভেশন তরুণ প্রকৌশলীদের অনুপ্রেরণা জাগাবে চ্যালেঞ্জকে সুযোগে উন্নীত করার, যার দ্বারা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি সমৃদ্ধ অর্থনীতি এবং টেকসই উন্নয়ন সম্পন্ন পৃথিবী তৈরী করা সম্ভব।

সমাপনি ও পুরস্কার বিতরনি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি ও প্রধান পৃষ্ঠপোষক সহ অন্যান্য অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন এবং অনুষ্ঠান শেষে অতিথি বৃন্দ বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন।##

পছন্দের আরো পোস্ট