ডিগ্রি পরিবর্তনের দাবিতে শেকৃবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন

বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়া বর্তমান ডিগ্রির নাম পরিবর্তনের দাবিতে সব ধরনের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) এগ্রিবিজনেস ম্যানেজমেন্ট অনুষদের শিক্ষার্থীরা। দাবি অনুযায়ী ডিগ্রির নাম বিবিএ (এগ্রিবিজনেস) থেকে পরিবর্তন করে বিএসসি ইন এগ্রিকালচারাল ইকোনোমিক্স না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

 

রোববার বেলা ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের এগ্রিবিজনেস ম্যানেজমেন্ট অনুষদের ডীনের মাধ্যমে উপাচার্য বরাবর এ দাবি জানিয়ে একটি স্মারকলিপি প্রদানের পর ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে অনুষদের শিক্ষার্থীরা।

 

সূত্র জানায়, গত ১১ মে ডিগ্রির নাম বিবিএ(এগ্রিবিজনেস) থেকে পরিবর্তন করে স্নাতক পর্যায়ে বিএসসি ইন এগ্রিকালচারাল ইকোনোমিক্স এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে এম.এস করার দাবিতে উপাচার্য বরাবর একটি স্মারকলিপি দেয় এগ্রিবিজনেস ম্যানেজমেন্ট অনুষদের শিক্ষার্থীরা। এছাড়াও কয়েক দফায় মানববন্ধন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সাথে সাক্ষাত করে তাদের দাবি তুলে ধরে তারা। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় অত্র অনুষদের শিক্ষার্থীরা সকল ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেয় এবং দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার কথা বলে।

 

Post MIddle

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানায়, বর্তমান ডিগ্রি নন-টেকনিক্যাল ও নতুন হওয়ায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শেষ করেও স্বায়ত্ত¡শাসিত গবেষণা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানগুলোতে আবেদন করতে পারছেন না তারা। এমনকি বর্তমান ডিগ্রির নাম নিয়ে বিভিন্ন চাকরির মৌখিক পরীক্ষায় শিক্ষার্থীদের নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় বলেও জানান শিক্ষার্থীরা।

 

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের কৃষি বিপণন ব্যবস্থা উন্নয়নের তাগিদে দক্ষ জনশক্তি সরবরাহের জন্য ২০০৭ সালে এ অনুষদ চালু করা হয়। শুরু থেকে ‘বিএসসি ইন এগ্রিবিজনেস ম্যানেজমেন্ট’ ডিগ্রি দেওয়া হলেও ২০১৩ সালের মে মাসে শিক্ষার্থীদের তীব্র আন্দোলনের মুখে বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের ৬০তম সভায় তা পরিবর্তন করে ‘বিবিএ ইন এগ্রিবিজনেস’ করা হয়।#

 

 

আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট