নাটোরে উপমহাদেশের বৃহৎ প্রাচীন রথ

272eb81a-a20c-42d7-a009-290fbff9e4a6

Post MIddle

কালের স্বাক্ষী বহনকারী হালতী বিলের পাশে গড়ে উঠা নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার একটি ঐতিহ্যবাহী অঞ্চল হলো মাধনগর ইউনিয়ন। আর মাধনগর রথ বাড়ী উপমহাদেশের বৃহৎ ও প্রাচীনতম। ১৮৬৭ সালে পাবনার দিলালপুরের জমিদার যামিনী সুন্দরী বসাক এই রথটি প্রতিষ্ঠা করেছেন। রথের মালিকানায় ছিলেন নাটোরের জমিদার শৈলবালা ও কালিদাসী।

প্রতি বছর আষাঢ় মাসের তিথি অনুসারে এখানে মাস ব্যাপী রথের মেলা ও পূজা অর্চনা হত। বীরকুৎসা ও গোয়ালকান্দির জমিদারের হাতি এসে রথ যাত্রায় অংশ নিত এবং রথ টানার কাজ করতো। এখানকার যাবতীয় খরচ পাবনার দিলালপুরের জমিদার যামিনী সুন্দরী স্টেট থেকে আসতো। ১৮৬৭ সাল থেকে ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত যামিনী সুন্দরী বসাক এই ব্যয়ভার বহন করেছেন। দেশবিভাগের পর আর কোন অনুষ্ঠান হয়নি।

২০১২ সাল থেকে স্থানীয় হিন্দু-মুসলিম মিলে আবারও রথের মেলা ও হিন্দু সম্প্রদায়ের পূজা অর্চনা শুরু হয়। রথের নামে বর্তমানে ১৫ বিঘা জমি আছে। বর্তমানে রথটি রক্ষণাবেক্ষণ, পূজা অর্চনা করছেন পিন্টু অধিকারী।

যেভাবে যাবেন: সড়কপথে বাসে নাটোর হরিশপুর বাসস্ট্যান্ড নামতে হবে। সেখান হতে পশ্চিমে দিকে রেল ষ্টেশন রাস্তায় উপজেলা পরিষদে সিএনজি-অটো যোগে সরাসরি মাধনগরে যাওয়া যাবে। অথবা নাটোরের
নলডাঙ্গা উপজেলা হইতে ভ্যান, অটো রিক্সা, মটর সাইকেল, নছিম এ চরে প্রায় ৩.৫ কিলোমিটার দূরে মাধনগর রথ বাড়ী যাওয়া যায়।

লেখাপড়া২৪/এমটি/২৪১

পছন্দের আরো পোস্ট