ভাল থেকো আমার প্রাণের ক্যাম্পাস!

নবীনছোট বেলায় স্কুল ছুটি হলে সেন্ডেল খুলে হাতে নিয়ে ভোঁ দৌড় দিতাম।বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ১০টা পর্যন্ত লুকোচুরি খেলেই পার করতাম। কারণ তার পরদিন যে শুক্রবার। তবে শুক্রবার সন্ধ্যা বেলা মন ভার হয়ে যেতো পরের দিন সকালে স্কুলে যেতে হবে ভেবে। শনিবার সকালে আল্লাহর কাছে বদদোয়া করতাম নিজের জন্য। যেন খুব জ্বর হয়, অসুখ হয়। যেন স্কুলে যেতে না হয়। কিন্তু তখন জ্বর আসতো না। মন ভার করে মাথা নীচু করে আকাশ সমান বিরক্ত নিয়ে স্কুলে যেতাম।

 

যখন বড় কোন ছুটি আসতো। যেমন , গ্রীষ্ম বা শীত অথবা রমজানের ছুটি। তখন ওই সব বড় ছুটিতে সে যে কি আনন্দ, তা আর বলে শেষ করা যাবে না।মনে পড়ে, গ্রীষ্মের ছুটিতে ঝিনুক ঘষে ঘষে আম ছুলার জন্য ছুরি বানাতাম। আমের কষ আর আঠা লেগে নাকে, গলায়, গালে ফোঁসকা পড়ে যেতো। তবুও নাছোড়বান্দা সে সময় কোন ছাড় দিতাম না।

 

Post MIddle

পুকুরে পুুকুরে ডুবে ডুবে গোসল করে চোখ লাল টুকটুকে করে বাসায় আসতেই মায়ের হুংকার। দাড়ারে শয়তান, চোখ লাল করে বাড়ি আসা হচ্ছে? আজ তোর একদিন কি আমার একদিন। জ্বর বাঁধানোর সাধ হয়েছে? এসব বলেই মা তেড়ে আসতো। দিতাম উর্ধ্ব শ্বাসে দৌড়। পরে মায়ের কাছ থেকে দু চার ঘা্ আপ্যায়ণ নিয়ে বাড়িতে ঢুকতাম।

 

আরো যে কত স্মৃতি জড়িয়ে রয়েছে, ছড়িয়ে রয়েছে তার কোন ইয়ত্তা নেই। হয়তো আজ বড় হয়ে গেছি। তাই আজ আর ছুটির মজা ভাল লাগে না। হয়তো আরো বড় কোন ছুটির অপেক্ষায় আছি। তবুও ভাল লাগে যখন দেখি, ক্যাম্পাসে বন্ধুরা ছুটির আগের দিন বন্ধুদের সাথে কুশল বিনিময় করছে। একে অপরকে আলিঙ্গন করে বিদায় নিচ্ছে। হয়তো এই প্রাঙ্গণ ছেড়ে যারা আজ রওনা দিচ্ছে মায়ের টানে মাটির টানে। এর মধ্যে অধিকাংশ ফিরে আসলেও হয়তো কেউ না কেউ ফিরে আসবে না। তবে দোয়া করি ১৭৫ একরের প্রতিটি সন্তান যেন আবার ফিরে আসে অক্ষত ভাবে। বাবা-মায়ের দেয়া আদর ভালবাসা আর স্নেহের পরশ নিয়ে তোমরা আবার আলোকিত করবে এই সবুজ চত্বর। সেই কামনা রইল।

 

ভাল থেকো আমার প্রাণের ক্যাম্পাস!
শ্রদ্ধেয় সকল শিক্ষকমন্ডলী, সহযোগী ও আন্তরিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী বড় ভা্ই, মেইন গেটের সামসুল ভাই, স্ন্যাক্সের লিটন ভাই আর আদরের সুজন, সপ্তডিঙ্গার রফিক ভাই, আমার দুই টাকা গ্লাস পানি খাওয়ানো রাজু, রিয়াজ চাচা, রুহুল ভাই, সোবহান চাচা, ক্যান্টিনের আশরাফ ভাই, হোটেল মালিক বশির ভাই, মাজহার ভাই, হলের লন্ড্রির মাধব দা, ৮ পদের নির্জন দা তোমরা সবাই ভালো থেকো। আর যাদের নাম লিখলাম না তারা মন খারাপ করো না। পরের কিস্তিতে তোমাদের নামটাও চলে যাবে। ভাল থেকো সবাইইইইইই্ইইইই………

 

 

পছন্দের আরো পোস্ট