সমাজ নিয়ে স্বপ্ন জহিরের

2016-05-24-10-09-23-215সবার থেকে একটু আলাদাই তার স্বপ্ন। হিমালয়ের চুড়ায় উঠার স্বপ্ন কখনই তার ভিতরে জন্মায়নি। তার স্বপ্নটাকে তৈরী করেছে সমাজের দায়বদ্ধতাকে ঘিরে । ২০১২ সালে উচ্চশিক্ষার জন্য পাড়ি জমায় পটুৃয়াখালী শহরে। পরিচিত হয় একটি সংগঠন ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার এর সাথে, সেখান থেকেই একজন সক্রিয় নাগরিকের কি করণীয় সে সম্পর্কে মাত্র চার দিনের একটা ট্রনিং নেয় “এ্যাকটিভ সিটিজেন্স ইয়ূথ লিডারশীপ” এর উপরে। তার পর থেকে পথ চলাটা তার থেমে থাকেনি। চল্লিশ জন ট্রেনিং প্রাপ্তদের মাঝে জহিরই বোধ হয় বুঝতে পেরেছিল সমাজের দায়বদ্ধতা কি?

 

তাই আর কখনো ফিরে তাকায়নি। সেখান থেকেই নিজের স্বপ্নটা তৈরী করেছে সমাজের জন্য, সমাজের মানুষের জন্য কিছু করার। আস্তে আস্তে পরিচিত হয়ে যায় বিভিন্ন মহলের মানুষ, সংগঠন, সংস্থা যা তার জন্য স্বপ্ন পুরণে সুযোগ হয়েছে। একা নয় সমাজকে সুন্দর করতে সংঘবদ্ধ হতে হবে, তাই বন্ধুদের সমাজের দায়বদ্ধতা বুঝতে কিছু বন্ধু তৈরী করে তার মত। আরও একধাপ এগিয়ে যায় জহিরের স্বপ্ন পুরনের লক্ষ।

 

যে সকল শিশু সমাজ থেকে বঞ্চিত, টাকার অভাবে স্কুলের চৌকাঠ পেরুতে পারে না তাদের জন্য ছোট পরিসরে স্কুলে পড়াশুনার ব্যাবস্থা। গ্রামের মানুষের বিনা টাকায় ছানি অপারেশন। বিভিন্ন সংস্থা থেকে শীতবস্ত্র সংগ্রহ করে পৌঁছে দিয়েছেন শীতার্থদের কাছে। শুধু সেখানেই থেমে থাকেনি জহির। দক্ষিণ অঞ্চলের কৃষকের কষ্টো তুলেছেন খাদ্য অধিকার আইন বিষয় জাতীয় যুব ছায়া সংসদে যা প্রস্তাবনা আকারে বই বের হয়ে জাতীয় সংসদ পযন্ত পৌঁছেছে।

 

Post MIddle

দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের পাশে দাঁড়াতে বিভিন্ন সংস্থার সাথে সংযোগ তৈরী করে তাদের হাতে কিছু তুলে দেয়া যথা সম্ভব চেষ্টা তার। এছাড়াও কাজ করছেন যুবকদের আত্মকর্মসংস্থান তৈরীর লক্ষে। সমাজিক কাজের পাশাপাশী যুক্ত আছে তার সাংবাদিকতা। লড়াইটা সেখানেও তার কম না। নবীন সাংবাদিক হিসেবে বেশ লেখালেখির দক্ষতাও রয়েছে জহিরের। পটুৃয়াখালীর সমস্যা দুরিকরণে সকল ইউনিয়ন থেকে প্রতিনিধি নিয়ে তৈরী করেছে লোকাল ইয়ূথ পার্লামেনট,পটুৃয়াখালী। নিজ গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য বেশ ভুমিকা জহিরের। গ্রামের মানুষগুলোর চোখের মনি জহির। তারা সবাই মিলে জহিরকে সংবর্দনাও দিতে চায়। কিন্তু জহির তাতে একমত নয়।

 

জহিররে সমাজের স্বপ্ন পুরণ যেমন থেমে থাকেনি তেমনি থেমে থাকেনি তার লেখা পড়া। প্রতিনিয়তই তার লেখাপড়ার দিকেও সে মনোযোগী। বর্তমানে সে পটুৃয়াখালী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের সিভিল ৭ম পর্বে পড়ছেন। আর এসব কাজ করতে বেশ ভাললাগে তার।#

 

আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট