শিক্ষক সঙ্কটে ২০০ সরকারি স্কুল

MAUSIসারা দেশে ৩৩৫টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে প্রায় ২০০ বিদ্যালয়েই রয়েছে শিক্ষকসংকট। এতে চরম বিঘ্ন হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। কাল বৃহস্পতিবার ঢাকায় অনুষ্ঠেয় সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সম্মেলনকে সামনে রেখে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরকে (মাউশি) এসব তথ্য জানিয়েছেন শিক্ষকসংকটে থাকা বিদ্যালয়গুলোর প্রধান শিক্ষকেরা। মাউশি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

 

সূত্র অনুযায়ী, সারা দেশের সরকারি বিদ্যালয়গুলোতে সব মিলিয়ে ২ হাজার ২৫৪টি শিক্ষকের পদ শূন্য। এর মধ্যে ১ হাজার ৭৪৪টি সহকারী শিক্ষকের পদ। বাকিগুলোর মধ্যে ৬৯টি প্রধান শিক্ষক ও ৪৪১টি সহকারী প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য। শিক্ষকসংকট ছাড়াও কর্মচারীসংকট, অবকাঠামোগত সমস্যাসহ মোট ১০ ধরনের সমস্যার কথা জানিয়েছেন প্রধান শিক্ষকেরা। সম্মেলনে এ বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হবে।

 

শিক্ষাসচিব সোহরাব হোসাইন গণমাধ্যমকে বলেন, নিয়োগবিধি-সংক্রান্ত জটিলতার কারণে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ করা যাচ্ছে না। নিয়োগবিধি এখন অনুমোদনের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে আছে। আশা করা যাচ্ছে, দ্রুত অনুমোদন হয়ে যাবে এবং শিক্ষক নিয়োগ শুরু করা যাবে।

 

Post MIddle

মাউশির কর্মকর্তারা বলেছেন, অধ্যক্ষ সম্মেলনের আদলেই প্রধান শিক্ষক সম্মেলন হচ্ছে। রাজধানীর সেগুনবাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে দিনব্যাপী এই সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

 

সম্মেলন সামনে রেখে মাউশি প্রধান শিক্ষকদের কাছে তথ্য চেয়েছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষকদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, উপজেলা পর্যায়ের স্কুলগুলোতে শিক্ষকসংকট বেশি, জেলা ও মহানগর এলাকার বিদ্যালয়গুলোতে তুলনামূলকভাবে কম। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলের অন্নদা সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকসহ শিক্ষকের ১৭টি পদের মধ্যে সহকারী প্রধান শিক্ষকসহ ৭টি পদ শূন্য। বিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থী প্রায় ৬৫০ জন।

 

অন্যদিকে রাজধানীর ধানমন্ডি গভ. বয়েজ হাইস্কুলে সহকারী শিক্ষকের ৫১টি পদের একটিও শূন্য নেই। এখানে শুধু সহকারী প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য। রাজধানীর অন্যান্য সরকারি স্কুলেও শিক্ষকসংকট নেই বললেই চলে।

পছন্দের আরো পোস্ট