মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে এলডিএফ এর কর্মশালা

LDF-PICমেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে লিডারশিপ ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (এলডিএফ) কর্তৃক “লিডারশিপ ডেভেলপমেন্ট”-এর উপর এক কর্মশালা রোববার অনুষ্ঠিত হয়। অধ্যাপক এম. হাবিবুর রহমান লাইব্রেরি হলে কর্মশালার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক শিব প্রসাদ সেন।

 

তিনি বলেন, আমাদের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্য থেকেই জাতির ভবিষ্যৎ নেতা সৃষ্টি হবে। বাংলাদেশে যোগ্য নেতার বড়ই অভাব রয়েছে যারা দেশকে সঠিকভাবে নেতৃত্ব দিয়ে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। তিনি আরোও বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক এমনকি পরিবার পর্যায়েও দক্ষ নেতেৃত্বের ভূমিকা অপিরিহার্য। সংস্থা বা সমাজের প্রত্যাশা পূরণকারী হিসেবে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত ব্যক্তিই নেতা। তাই সঠিক নেতৃত্ব দানের জন্য নেতাকে হতে হবে সচেতন ও গুণাবলীসম্পন্ন।

 

কর্মশালায় রিসোর্স পারসন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির কোষাধ্যক্ষ এবং এলডিএফ এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক খন্দকার মাহমুদুর রহমান এবং মূখ্য আলোচক ছিলেন ডাচ-বাংলা ব্যাংক, সিলেট শাখার এভিপি ও ম্যানেজার জনাব নিছার আহমদ। আলোচনায় অংশ নেন মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির পরিচালক (অর্থ) মিহিরকান্তি চৌধুরী, ব্যবসা প্রশাসন বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. রিফাত কিবরিয়া। তাঁরা বলেন, নেতৃত্বের অন্যতম গুণাবলী হচ্ছে অনুসারীদেরকে প্রভাবিত করা। নেতাকে হতে হবে আতœত্যাগী এবং নিজেকে উৎসর্গ করার মানসিকতাসম্পন্ন। আদর্শ নেতৃত্বের জন্য সততা, আত্মসংযমী, বিশ্বস্থতা, নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ এবং দায়িত্ববোধ থাকা বাঞ্চনীয়।

 

উক্ত কর্মশালার সার্বিক আয়োজন ও উপস্থাপনায় ছিলেন এলডিএফ-এর সদস্য-সচিব এবং ইইই বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক নওশাদ আহমদ চৌধুরী।##

 

লেখাপড়া২৪.কম/এমএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট