ঢাবির বকুলতলায় রুদ্র মেলা

photo-1460111702প্রয়াত কবি রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহর স্মরণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায় চলছে রুদ্র মেলা। দিনব্যাপী এ মেলার শুরুতে কবির লেখা কালজয়ী গান পরিবেশন করা হয়।শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় চারুকলার বকুলতলায় এ মেলার উদ্বোধন করেন সাংবাদিক আবেদ খান।

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রুদ্র সংসদের সহ-সভাপতি কবি নিশাদ খানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস।সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস বলেন, ‘রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ সমাজতন্ত্রে বিশ্বাস করতেন। তার কবিতা সংগ্রামের কথা বলে। মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে। তাঁর লক্ষ্য ছিল মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বংলাদেশ গড়া।’

 

তিনি বলেন, ‘সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট গঠনে অন্যতম সংগঠক ছিলেন তিনি। স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে তাঁর বিরাট ভূমিকা ছিল। তাঁর ভাবনা ছিল মানুষ, দেশ ও প্রেম। তাঁকে বুঝতে হলে এর একটাকে বাদ দিয়ে আরেকটাকে আলাদা করা যাবে না।’

সাংবাদিক আবেদ খান বলেন, ‘শহীদুল্লাহ ছিলেন প্রথাবিরোধী কবি। প্রথা না ভাঙলে বিপ্লব হয় না। নতুন সৃজন হয় না। প্রথাকে ভাঙতে হয়। বর্তমান ও তারুণ্যের মধ্যে রুদ্রের উপস্থিতি বিদ্যমান। নতুন প্রজন্ম রুদ্রের মতো প্রত্যাখ্যান করা শিখছে। এই মেলার ভেতর দিয়ে নতুন প্রজন্ম রুদ্রকে চেনার সুযোগ হচ্ছে। তাই আলোচনা ও মেলার মধ্যে তাঁকে সীমাবদ্ধ রাখলে চলবে না। রুদ্রকে নিয়ে গবেষণার প্রয়োজন আছে।’

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহকাম উল্লাহ, কবি শেকর বরণ, ডাকসুর সাবেক সাহিত্য সম্পাদক ইসতেকবাল হোসেন প্রমুখ।

 

অনুষ্ঠানে সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠী, প্রকাশ সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংগঠন, সংবৃতা, প্রজন্ম কণ্ঠ, স্বরচিত্র, চারুকণ্ঠ এবং আবৃত্তি সংসদের শিল্পীরা গান পরিবেশন করেন।##

 

লেখাপড়া২৪.কম/এমএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট