সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতার ফল প্রকাশ

720140508160537সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজে জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিজয়ী শিক্ষার্থীদের হাতে সনদ ও এক লাখ টাকা করে পুরস্কার তুলে দেবেন। পুরস্কার বিতরণের দিনক্ষণ এখনও ঠিক হয়নি।

 

এবার ‘ভাষা ও সাহিত্য’ বিষয়ে ময়মনসিংহ জিলা স্কুলের নাহিয়ান ইসলাম ইনান, রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের সিরাতল মোস্তাকিম শ্রাবণী এবং লালমনিরহাটের মজিদা খাতুন সরকারি মহিলা কলেজের মৌমিতা রহমান ঈপসিতা জয়ী হয়েছেন।

 

‘দৈনন্দিন বিজ্ঞান/বিজ্ঞান’ বিষয়ে দেশসেরা হয়েছেন দিনাজপুরের আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের মো. মখলেসুর রহমান ইমন, জয়পুরহাট সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শতাব্দী রায় এবং বগুড়ার সরকারি আযিযুল হক কলেজের মাহিয়া আহমেদ।

 

রংপুর জিলা স্কুলের শ্বাশত সাহা রায়, কুমিল্লা জিলা স্কুলের শৌর্য দাশ এবং ঢাকার নটরডেম কলেজের শেখ আজিজুল হাকিম দেশসেরা হয়েছেন ‘গণিত ও কম্পিউটার’ বিষয়ে।

 

‘বাংলাদেশ স্টাডিজ ও মুক্তিযুদ্ধ’ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মোতাকাব্বির বিন মোতাহার, কুমিল্লা জিলা স্কুলের নাজমুস সাকিব এবং বিয়ানী বাজার সরকারি কলেজের ঐশ্বর্য সাহা ঊর্মি বিজয়ী হয়েছেন।

 

দেশসেরা শিক্ষার্থীদের নাম ঘোষণার সময় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসাইনসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সুপ্ত প্রতিভা খুঁজতে গত ১৫ মার্চ থেকে দেশব্যাপী শুরু হয়েছিল সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতার এবারের আসর।

 

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা উপজেলা পর্যায়ে ১৫, ১৬, ১৮ ও ১৯ মার্চ; জেলা পর্যায়ে ২২ মার্চ, ঢাকা মহানগরে ২৩ মার্চ এবং বিভাগীয় পর্যায়ে ২৪ মার্চ এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।ষষ্ঠ-অষ্টম, নবম-দশম এবং উচ্চ মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীরা তিন ভাগে ভাগ হয়ে ভাষা ও সাহিত্য, বিজ্ঞান, গণিত ও কম্পিউটার এবং বাংলাদেশ স্টাডিজ ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা।

 

প্রত্যেক উপজেলা থেকে সেরা ১২ জন জেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিল। জেলার বিজয়ীরা অংশ নেয় বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায়। বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত পর্যায়ে সাত বিভাগ ও ঢাকা মহানগরী থেকে নির্বাচিত ৯৬ জন জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।এই প্রতিযোগিতায় ২ লাখ শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে।

 

দেশসেরা ১২ শিক্ষার্থী ছাড়াও উপজেলা পর্যায়ের সেরা ১২ জনের সবাইকে এক হাজার, জেলা পর্যায়ে সেরাদের দেড় হাজার এবং বিভাগীয় পর্যায়ে সেরাদের দুই হাজার টাকা করে পুরস্কার ও সনদ দেওয়া হবে। ২০১৩ সাল থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় দেশব্যাপী সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতার আয়োজন করছে।

পছন্দের আরো পোস্ট