চুয়েট কর্তৃপক্ষের জরুরি নোটিশ

CUETএতদ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে, গত ২৯ মার্চ, ২০১৬ খ্রি: তারিখে বিপজ্জনকভাবে অটোরিকশা (টুকটুকি/লেগুনা) চালনার শিকার হয়ে নিহত হন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর স্থাপত্য বিভাগের লেভেল-৫, টার্ম-১ এর ছাত্র মো: মুহাইমিনুল ইসলাম। মেধাবী এই ছাত্রকে অকালে হারিয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার অত্যন্ত মর্মাহত হয়।
তাই উপরোক্ত দুর্ঘটনা এবং পরবর্তী ঘটনাবলী বিবেচনায় এনে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জরুরী ভিত্তিতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। নিম্নে এর কয়েকটি উল্লেখ করা হলো:-

 

১) দুর্ঘটনায় দায়ী চালককে গ্রেপ্তারে পদক্ষেপ:
উক্ত দুর্ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের আটক করে আইনানুগ শাস্তির বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রাউজান থানায় একটি এফ.আই.আর করা হয়েছে। এছাড়া দায়ীচালকসহ ঘটনায় জড়িতদের আটক ও শাস্তি প্রদানের নিমিত্তে প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ে এই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছে।

 

২) বিআরটিসি বাস চালু:
চট্টগ্রাম শহর (পুরাতন রেল স্টেশন) থেকে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস পর্যন্ত বিআরটিসি’র দুটি বাস চলাচলের ব্যবস্থা নিতে ইতিমধ্যে পুনরায় উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ লক্ষে বিআরটিসি বরাবর পত্র প্রদান করা হয়েছে। এরইমধ্যে বাস সার্ভিস পুনরায় চালু হয়েছে।

 

৩) টুকটুকি/লেগুনা বন্ধে উদ্যোগ:
চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কে বিপজ্জনক ও অননুমোদিত অটোরিকশা (টুকটুকি/ লেগুনা) চলাচল বন্ধে জরুরী ভিত্তিতে কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ইতিমধ্যে জেলা পুলিশ সুপার এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিশেষ পত্র লেখা হয়েছে। এ বিষয়ে গত ৩০ মার্চ, ২০১৬ খ্রি: চুয়েটে বিক্ষুব্ধ ছাত্রদের সমাবেশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টুকটুকি/ লেগুনা বন্ধে যে প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন তা বাস্তবায়নে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য তাঁকে বিশেষভাবে তাগাদা পত্র দেয়া হয়।

 

৪) কাপ্তাই রোডে সিটি বাস-মিনিবাস চলাচলে ব্যবস্থা গ্রহন:
চুয়েট গেইট হতে নিউমার্কেট পর্যন্ত সিটি বাস/মিনিবাস/ ৬ নং সার্ভিস চালু করার জন্য কাপ্তাই বাস মালিক সমিতি এবং সিটি বাস মালিক সমিতির সভাপতি/সাধারন সম্পাদককে পত্র প্রদান করা হয়েছে এবং এ ব্যাপারে যৌথ বৈঠক করারও উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

 

৫) দুটি এ্যাম্বুলেন্স নিয়োজিত রাখা:
ছাত্র-ছাত্রীদের দাবি মোতাবেক ০৩/০৪/২০১৬ ইং তারিখ হতে জরুরী সার্ভিস হিসেবে ০২(দুই) টি এ্যাম্বুলেন্স ২৪(চব্বিশ) ঘন্টা নিয়োজিত রাখার ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

 

৬) ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে আলোচনা:
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের মাধ্যমে একাডেমিক কার্যক্রম চালুর নিমিত্তে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ ও আলোচনা অব্যাহত রয়েছে।

পছন্দের আরো পোস্ট