ইবিতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অভিনব প্রতিবাদ

DSC01426স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের সময় কালো ব্যাচ ধারণ করে অভিনব প্রতিবাদ করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উপাসনালয়ে ভাংচুরের ঘটনায় এই প্রতিবাদ করেছে বলে জানা গেছে। স্বতঃস্ফূর্ত এমন প্রতিবাদের পরেও মিলছে না দুষ্কৃতিকারীদের শাস্তির আশ্বাস। প্রশাসনিকভাবে বিষয়টি নিযে তদন্তের কথা বলা হলেও এখন পর্যন্ত নেয়া হয়নি কোন পদক্ষেপ। এনিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বী সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বস্তরে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে।

 

জানা যায়, শনিবার মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবসে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের সময় অন্য সবার মধ্যে উৎসবের আমেজ বিরাজ করলেও সনাতন ধর্মাবলম্বী শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চোখে মুখে ফুটে উঠে হতাশা, আতংক। গত বুধবার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উপাসনালয়ে ভাংচুরের ঘটনায় শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের সময় তারা মাথায় ও বুকে কালো ব্যাচ ধারণ করে প্রতিবাদ জানায় বলে জানা গেছে।

 

এছাড়া ভাংচুরের প্রতিবাদে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা রবিবার মানববন্ধন করবেন। এদিকে মানববন্ধন না করার জন্য সনাতন ধর্মাবলম্বীদেরকে মোবাইলে ফোন করে অজ্ঞাত পরিচয়ে একাধিক হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

সনাতন ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থী বিপ্লব কর্মকার, মিঠুন বৈরাগী, শিমুল মজুমদারসহ কয়েকজন বলেন-‘কোন কারণ ছাড়াই বুধবার আমাদের উপাসনালয়ে ভাংচুর চালিয়েছে ছাত্রলীগের একটি গ্রুপের নেতাকর্মীরা। প্রশাসনের কাছে এব্যাপারে অভিযোগ করেও কোন কার্যকর ভুমিকা তারা নেয়নি। তাই স্বাধীনতার এই দিনে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ হিসেবে কালো ব্যাচ ধারণ করেছি।’

 

কয়েকজন শিক্ষক বলেন-‘ধর্মীয় উপাসনালয়ে ভাংচুরের ঘটনায় আমরা মর্মাহত। স্বাধীনতার এত বছর পরেও আমরা স্বাধীনতা ভোগ করতে পারছি না। মনের কষ্ট কাউকে জানাতে পারছি না। তাই আমাদের এই অভিনব প্রতিবাদ।’

 

এব্যাপারে প্রক্টর ড. মাহবুবর রহমান বলেন-‘ভিসি মহোদয় ক্যাম্পাসের বাইরে ছিলেন। যে কারণে সিদ্ধান্ত নিতে বিলম্ব হয়েছে। আগামীকাল (রবিবার) স্যারের সাথে আলোচনা সাপেক্ষ্যে এব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’#

 

নবীন/আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট