যুব ছায়া সংসদের তৃতীয় অধিবেশন অনুষ্ঠিত

12বুধবার (১৬মার্চ) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী সিনেট ভবনে ইয়ূথ এগেইনষ্ট হাঙ্গার, অক্সফ্যাম ও হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ড আয়োজনে এবং ১৯টি বেসরকারী উন্নয়ন সংগঠনের একটি জোট এর পক্ষ থেকে কর্মের অধিকার সুরক্ষায় যথাযথ আইন প্রণয়নের দাবীতে ‘যুব ছায়া সংসদ’ এর ৩য় অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত ছায়া সংসদে অবিলম্বে সকল চাকুরির আবেদন পত্রের সাথে ব্যাংক ড্রাফট/ পে-অর্ডার নেয়ার প্রথা আইনতঃ বাতিল করার প্রস্তাব সর্বসম্মতিক্রমে পাশ করা হয়।

 

‘কর্মের অধিকার’ জণগনের সাংবিধানিক অধিকার। কর্মের অধিকারের সাথে মানুষের খাদ্য অধিকার ওতোপ্রোতভাবে সম্পর্কিত। বাংলাদেশের মহান সংবিধানের ধারা ১৫ (ক), ১৫(খ), ১৯, ২০, ২৯ (ক) অনুযায়ী নাগরিকের মৌলিক প্রয়োজনের ব্যবস্থা, পরিকল্পিত অর্থনৈতিক বিকাশের মাধ্যমে উৎপাদনশক্তির ক্রমবৃদ্ধিসাধন, জীবনযাত্রার বস্তুগত ও সংস্কৃতিগত মানের দৃঢ় উন্নতি সাধন, সুযোগের সমতা, ইত্যাদি নিশ্চিত করা রাষ্ট্রের অন্যতম দায়িত্ব। বিধায়, যুব ছায়া সংসদে সকলের খাদ্য অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে দেশের সকল কর্মক্ষম নাগরিকদের যোগ্যতানুসারে কাজ পাবার অধিকার তথা ‘কর্ম অধিকার’ নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে যথাযথ আইন প্রণয়নের মাধ্যমে কর্ম অধিকার নিশ্চিতকরণের পথে বাধাসমূহ অপসারণ করার দাবী ব্যক্ত করা হয়।

 

মহান জাতীয় সংসদ এর আদলে অনুষ্ঠিতব্য ‘যুব ছায়া সংসদ’ এর ৩য় অধিবেশনটিতে দেশের ৩০০ নির্বাচনী এলাকার প্রতিনিধি হিসেবে ৩০০ জন যুবক (২৫ বছরের কম বয়সী) অংশ নিয়েছে। অনুষ্ঠিত ‘যুব ছায়া সংসদ’ এর মাধ্যমে বাংলাদেশে কর্ম অধিকার নিশ্চিতকরণের পথে বিরাজমান প্রতিবন্ধকতাসমূহ আলোচনা এবং সরকারে নীতি নির্ধারনী মহলের দৃষ্টি আকর্ষনের জন্য এ বিষয়ে যুব ছায়া সংসদের ২২ জন সদস্য আলোচনায় অংশ নেন এবং নানাবিধ প্রস্তাবনা ও সুপারিশ তুলে ধরেন।

 

11আয়োজিত যুব ছায়া সংসদ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং সাবেক খাদ্য মন্ত্রী ডঃ আব্দুর রাজ্জাক এমপি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের মাননীয় ডেপুটি স্পীকার এডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক ডাকসু ভিপি ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, এনজিও বিষয়ক ব্যুরো’র পরিচালক কে এম আবদুস সালাম, কৃষি বিজ্ঞানী ড. জয়নুল আবেদীন ও বেসিস এর সাবেক সভাপতি ও নব্বই এর সংগ্রামী যুবনেতা মাহবুব জামান। এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন অক্সফ্যাম এর এডভোকেসি কোঅর্ডিনেটর মুজাহিদুল ইসলাম নয়ন এবং হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ড এর কান্ট্রি ডিরেক্টর আতাউর রহমান মিটন। বিভিন্ন যুব সংগঠনের প্রতিনিধি উক্ত যুব ছায়া সংসদে পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

 

উল্লেখ্য, ‘খাদ্য অধিকার’ আদায়ের দাবীতে ৩০ ডিসেম্বর ২০১৪ প্রথম এবং গত বছর ১৭ অক্টোবর তারিখে যুব ছায়া সংসদ এর ২য় অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। উক্ত যুব ছায়া সংসদ অধিবেশন দুটির মাধমে সরকারের কাছে অবিলম্বে খাদ্য অধিকার আইন পাশের দাবী জানানো হয়েছিল। এরই ধারাবাহিকতায় ৩য় যুব ছায়া সংসদ ‘কর্মের অধিকার’ নিশ্চিতকরণের পথে বিরাজমান বাধাসমূহ অপসারণের জন্য সরকারের কাছে দাবী জানিয়েছে। কেননা, খাদ্য অধিকার নিশ্চিত করার সাথে কর্মের অধিকার নিশ্চিত করা ওতাপ্রতোভাবে জড়িত।

 

এছাড়াও ‘যুব ছায়া সংসদ’ আশা করছে আয়োজিত ইয়ূথ পার্লামেন্টে অংশগ্রহণের মাধ্যমে যুবরা গণতান্ত্রিক রীতি ও সংষ্কৃতির প্রতি আস্থাশীল হবে। তারা খাদ্য অধিকারের এবং কর্মের অধিকারের সাথে সম্পর্কিত বিষয়গুলো গভীরভাবে অনুধাবন করবে এবং কর্ম অধিকার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সরকারের কাছে আইন প্রণয়নের দাবী জানানো ছাড়াও এই বিষয়ে নিজেদের কর্তব্য ও করণীয় সম্পর্কে সচেতন হবে। এর মাধ্যমে খাদ্য অধিকারের মত মানুষের অন্যান্য মৌলিক অধিকারগুলো নিয়েও পর্যায়ক্রমে দেশের যুব সমাজ তাদের কন্ঠ উচ্চকিত করবে, হাত উঁচিয়ে দাবী জানাবে এবং দেশের ভবিষ্যত নেতৃত্ব হিসেবে নিজেদের দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে সচেতন হয়ে উঠবে বলে উদ্যোক্তারা প্রত্যাশা করেন।

 

যুব ছায়া সংসদে স্পিকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ইয়ূথ এগেইনস্ট হাঙ্গারের সভাপতি, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্র আব্দুল্লাহ আল কাইয়ুম কাফি, প্রধান মন্ত্রি হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরর শেখ কান্তা রেজা, বিরোধী দলীয়নেতা হিসেবে সেন্ট জোসেফ কলেজের রাইসুল মিল্লাত শাফকাত এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রি হিসেবে মেলিটারি ইনস্টিটিউটের শাহরিমা জান্নাত ঐশী।#

 

লেখাপড়া২৪.কম/আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট