বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে চুয়েটে বিভিন্ন কর্মসূচি

4চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এ দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য আয়োজনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম দিবস ও জাতীয় শিশু দিবস-২০১৬ পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) আয়োজিত অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর জন্মদিবসের কেক কাটা, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর জীবন আদর্শের উপর আলোচনা, জাতির জনকের ছবি ও বক্তব্য সম্বলিত ব্যানার-ফেস্টুন প্রকাশ, শিশু-কিশোরদের রচনা প্রতিযোগিতা, শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান প্রভৃতি।

 
প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়েটের মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মো: জাহাঙ্গীর আলম। চুয়েটের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ উপলক্ষে পুরকৌশল বিভাগের সেমিনার কক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়েটের মাননীয় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, পুরকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো: হযরত আলী, প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডীন এবং ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. আশুতোষ সাহা, যন্ত্রকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো: মাহবুবুল আলম।

 

2চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মো: জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এই বাংলাদেশের হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এই মহান ব্যক্তিত্বের জন্মদিনে আমরা তাঁর প্রতি অগাধ শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন ছিল জাতির জনকের। কিন্তু কুচক্রীর কারণে সেই স্বপ্ন পূরণ হয়নি। এখন তাঁরই সুযোগ্য কন্যার নেতৃত্বে আমরা উন্নত বাংলাদেশ গড়ার অভিযাত্রায় আছি। ইতিমধ্যে আমরা মিলেনিয়াম ডেভলপমেন্ট লক্ষ্যমাত্রা অনেকাংশে পূরণ করেছি। এখন টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পারলেই বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ তথা উন্নত দেশের কাতারে আমরা পৌঁছাতে পারবো। এজন্য নিজ নিজ অবস্থান থেকে বর্তমানে চলমান উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারায় অবদান রেখে যেতে হবে।

 

প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, সারা বিশ্বের মাঝে একজন বিরল নেতৃত্ব ও ব্যক্তিত্বগুণের অধিকারী ছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু। আমরা অকৃতজ্ঞ জাতি বলেই তাঁকে স্বপরিবারের হত্যা করেছি। অন্যথায় বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে অনেক আগেই মাথা উচুঁ করে দাঁড়াত। বর্তমানে আমাদের মাঝে আবারো সুযোগ এসেছে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সেই সোনার বাংলা গড়ার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ়চেতা নেতৃত্বে বাংলাদেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তা অব্যাহত রাখতে পারলে আমরা শিগগিরই কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবো।

 

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন যন্ত্রকৌশল বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র বনিক, পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহমেদ, প্রভোস্টগণের পক্ষে অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ শামসুল আরেফিন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক, কর্মকর্তা সমিতির সাধারন সম্পাদক জনাব আমীন মো মুসা, কর্মচারী সমিতির সভাপতি জনাব মো: জামাল উদ্দিন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক জনাব মাসুদ হোসেন রুবেল, সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব বিশ্বজিত ভট্টাচার্য প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন নির্বাহী প্রকৌশলীঅচিন্ত্য কুমার চক্রবর্ত্তী।##

 

লেখাপড়া২৪.কম/এমএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট