খুবিতে কটকা ট্রাজেডি স্মরণে শোক দিবস পালিত

????????????????????????????????????

রোববার ১৩ মার্চ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে পালিত হলো কটকা ট্রাজেডি স্মরণে শোক দিবস। ২০০৪ সালের এ দিনে সুন্দরবনের কটকায় সফরে যেয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের ৯ জন এবং বুয়েটের ২ জনসহ মোট ১১ জন ছাত্র-ছাত্রী সমুদ্রগর্ভে নিমজ্জিত হয়ে শাহাদতবরণ করেন।

 

বেদনাবিধুর পরিবেশে দিনব্যাপী কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে দিবসটি পালন উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসকে সাজানো হয় শোকাবহ সাজে। ক্যাম্পাসের প্রধান ফটক থেকে শুরু করে শহীদ মিনার চত্বর হয়ে কটকা স্মৃতি স্তম্ভ পর্যন্ত প্রায় আধা কিলোমিটার সড়কের দ’ুপাশের সারিবদ্ধ গাছে কালো কাপড় দিয়ে তার ওপর শহীদ শিক্ষার্থীদের নাম লিখে শোকের আবহ তৈরি করা হয়। সকাল দশটায় কালোব্যাজ ধারণ করে সাড়ে ১০ টায় হাদী চত্বর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামানের নেতৃত্বে শুরু হয় সুদীর্ঘ এক শোক র‌্যালি। র‌্যালিটি পরে প্রশাসন ভবনের নিকট দিয়ে কটকা স্মৃতি স্তম্ভে পৌঁছায়। এরপর শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণের আগে নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে প্রথমে ভাইস-চ্যান্সেলর শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি, খানজাহান আলী হল, খান বাহাদুর আহছানউল্লাহ হল, অপরাজিতা হল, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, স্থাপত্য পরিবার, ইংরেজি ডিসিপ্লিন, ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ, ড্রইং এন্ড পেইন্টিং, ভাস্কর্য, প্রিন্ট মেকিং, পরিসংখ্যান ও কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিন থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। এ পরপরই ১নং একাডেমিক ভবনের সামনে চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন ভাইস-চ্যান্সেলর। এখানে তিনি শোক বইতে স্বাক্ষর করেন। এছাড়া দিনের অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিলো বাদ যোহর বিশ্ববিদ্যালয় জামে মসজিদে মিলাদ, এতিমদের সাথে মধ্যাহ্ন ভোজ, বিকেল সাড়ে ৫ টায় শোক সভা ও স্মৃতিচারণ, সন্ধ্যায় প্রদীপ প্রজ্জ্বলন এবং তথ্যচিত্র প্রদর্শন। এসব কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনবৃন্দ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত), ডিসিপ্লিন প্রধান, প্রভোস্টবৃন্দ ও বিভাগীয় প্রধানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মকর্তা কর্মচারি এবং বিপুল সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করেন।

 

খুবি শিক্ষক মেহেদী হাসানের পিতার ইন্তেকাল:
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ এন্ড মেরিণ রিসোর্স টেকনোলজি ডিসিপ্লিনের প্রভাষক মোঃ মেহেদী হাসানের পিতা মোসলেম উদ্দীন হাওলাদার গত ১২ মার্চ শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় রূপসা উপজেলার মৈশাঘুনী গ্রামে নিজ বাস ভবনে বাধ্যকজনিত কারণে ইন্তেকাল করেন (ইন্না…রাজেউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৮৫ বছর। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চারপুত্র ও চারকন্যাসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। বাদ যোহর নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।

 

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান ফিশারিজ এন্ড মেরিণ রিসোর্স টেকনোলজি ডিসিপ্লিনের প্রভাষক মোঃ মেহেদী হাসানের পিতার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোক বার্তায় তিনি মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। অনুরূপভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার খান আতিয়ার রহমান, জীববিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ নাজমুল আহসান, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) টিপু সুলতান, সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. আইয়াজ হাসান চিশতীসহ ডিসিপ্লিনের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ শোক প্রকাশ করেছেন।#

 

 

লেখাপড়া২৪.কম/আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট