গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে মহান একুশে পালিত

????????????????????????????????????

গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উদ্যোগে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৬ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও সাস্কৃতিক অনুষ্ঠান ২১ ফেব্রুয়ারি-২০১৬ সকাল ৯ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রিন অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ গোলাম সামদানী ফকিরের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দেশবরেণ্য ভাষা বিজ্ঞানী, প্রাবন্ধিক ও ভাষাসৈনিক জনাব কামাল লোহানী।

 

সকাল ৬টায় গ্রিন ইউনিভার্সিটির পক্ষ থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও গ্রিন ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাস প্রাঙ্গনে প্রতিষ্ঠিত শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক প্রদানের মাধ্যমে মহান শহীদ দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্যে গ্রিন ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার জনাব মোঃ শহীদ উল্লাহ বলেন ভাষাসৈনিকরা কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর সম্পদ নয়, তাঁরা সমগ্র বাঙ্গালী জাতির গর্ব-বাঙ্গালী জাতির সম্পদ। ১৯৫২ সালে তাঁদের অবদান চিরস্বরণীয় হয়ে থাকবে। সত্যিকার অর্থে ৫২ সালের ভাষা আন্দোলন ১৯৭১ সালে আমাদের স্বাধীনতা অর্জনে প্রেরণা জুগিয়েছে। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব কামাল লোহানী ভাষা আন্দোলনের স্মৃতিচারণ করেন এবং বলেন পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশই একমাত্র দেশ, যার জনগণ ভাষার জন্য জীবন উৎসর্গ করেছেন। বাংলা ভাষা আজ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা।

 

সভাপতির বক্তব্যে প্রফেসর ড. মো: গোলাম সামদানি ফকির বলেন ভাষা আন্দোলনের হাত ধরেই মুক্তির সংগ্রাম, সেই থেকে স্বাধীনতা ও স্বাধীন দেশ। এই ভাষা আজ দেশ ছাড়িয়ে, মহাদেশ ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষায় রূপ নিয়েছে। ভাষা আন্দোলনের ৬৪ বছর চলছে। বাংলাভাষা আজ শুধু বাংলাদেশে নয়, পশ্চিমবঙ্গ, বৃটেন, আমেরিকাসহ নানান দেশের বাঙালীদের ভাষা। এই ভাষার প্রতি আমাদের আরো যতœবান হওয়া উচিৎ। আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, রেজিস্ট্রার লে. জেনারেল মো. মইনুল ইসলাম, ব্যবসায় অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. গোলাম আহমেদ ফারুকী, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন, প্রফেসর ড. মো. ফায়জুর রহমান ও ইংরেজি বিভাগের চেয়ারম্যান জনাব ওয়াজেদ কবির। আলোচনা সভায় ও সাস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিভাগের সম্মানিত চেয়ারম্যানগণ, শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।#

 

 

লেখাপড়া২৪.কম/আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট