‘গণ বিশ্ববিদ্যালয়কে নতুনভাবে সাজাতে চাই’

IMG_0580ঢাকার অদূরে গ্রাম ও শহরের মিশ্র এক মনোরম ও শান্ত পরিবেশে নাগরিক কোলাহলমুক্ত প্রশস্ত প্রাঙ্গণে ১৯৯৮ সালে গণ বিশ্ববিদ্যালয় স্হাপিত হয়। প্রতিষ্ঠার শুরুতে গণ বিশ্ববিদ্যালয় গণস্বাস্হ্য কেন্দ্রের চত্বরে অবস্হিত ছিল। গণস্বাস্হ্য কেন্দ্র ট্রাস্ট কর্তৃক দানকৃত ১০ একর জমিতে নির্মিত নতুন শিক্ষাভবনে বর্তমানে শিক্ষা কার্যক্রম এবং প্রশাসনিক ভবনে প্রশাসনিক কাজ পরিচালিত হচ্ছে। আয়তনে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় এ বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়টি বর্তমানে ২৫ একর নিজস্ব জমির উপর প্রতিষ্ঠিত। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বর্তমানে তিনটি অনুষদের অধিনে ১৪টি বিভাগে পাঁচ হাজারের অধিক শিক্ষার্থী রয়েছে।

 

দেখতে দেখতে বিশ্ববিদ্যালয়টির ১৭টি বছর কেটে গেছে। পুরাতন বছর শেষে শুরু হয়েছে নতুন আরেকটি বছর।  নতুন বছরের বিভিন্ন পরিকল্পনা নিয়ে শিক্ষাবিষয়ক অনলাইন লেখাপড়া ২৪.কমকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মোঃ দেলোয়ার হোসেন জানান, এ বছর আমরা বিশ্ববিদ্যালয়কে নতুনভাবে সাজাতে চাই।

 

তিনি বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সময়পযোগী নতুন ৩টি বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু করা হয়েছে। বিভাগগুলো হচ্ছে- ভেটেনারি এন্ড এ্যানিমেল সাইন্স, বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি এবং পদার্থ ও রসায়ন বিজ্ঞান। এই বিভাগগুলোর অধীনে শিক্ষার্থীদেরকে সঠিক শিক্ষা প্রদানের উদ্দেশ্যে প্রয়োজনীয় ক্লাসরুম এবং আধুনিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ ল্যাব, যেমন- UV Spectrophotometer, perimeter, colorimeter, HPLC (High Performance Liquid Chromatography-সহ যাবতীয় প্রয়োজনীয় ইলেক্ট্রনিক্স ও পদার্থবিদ্যায় ব্যবহৃত আধুনিক যন্ত্রপাতি এবং সমৃদ্ধ কেমিস্ট্রি ল্যাব থাকছে। এছাড়া ইন্টারনেট সমৃদ্ধ কম্পিউটার ল্যাবও রয়েছে।

 

রেজিস্ট্রার বলেন, গণবির সব বিভাগেই গ্রামের দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রদের বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ এবং গ্রামের অতি দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রীদের বিনা খরচে থাকা-খাওয়াসহ পড়ার সুযোগ দানে বিশ্ববিদ্যালয় বিশেষ বৃত্তি প্রদান করে থাকে। এছাড়া এ বছরের শেষের দিকে আরও তিনটি নতুন কোর্স গণ-যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা, অর্থনীতি এবং চারুকলা বিষয়ে অনার্স চালু হবে।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আবাসিক সুবিধার জন্য হল, সুইমিং পুল, কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ(২) এবং মানসম্পন্ন খাবারের ক্যান্টিনের আসন সংখ্যা বৃদ্ধির কাজ দ্রুত শুরু হবে।

 

তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের কাজ শেষ হলে, নতুন কারুকার্য সম্পন্ন সম্পূর্ণ স্টীলের ২০০০-৩০০০ আসন বিশিষ্ট একটি হল রুম তৈরির কাজ শুরু হবে। এছাড়া এ মাসেই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে প্রথম চালু হওয়া কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের দ্বিতীয় নতুন কমিটির শপথ ও অভিষেক অনুষ্ঠান জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে করা হবে।

 

দেলোয়ার হোসেন বলেন, নতুন বছরে আমরা শিক্ষার্থীদের গুণগতমানের আধুনিকায়ন শিক্ষা দিতে চাই। পরীক্ষায় উন্নতমান নিশ্চিত করার জন্য একজন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে External Auditor for academic affairs & Examination আমাদেরই আছে। যার ফলে পরীক্ষার মান উন্নত হবে এবং শিক্ষার্থীরা অসাম্প্রদায়িক ও সামাজিক দায়-দায়িত্বসম্পন্ন শিক্ষিত নাগরিক হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে পারবে।#

 

লেখাপড়া২৪.কম/তারেক/আরএইচ 

 

পছন্দের আরো পোস্ট