গণস্বাস্থ্য মেডিকেল কলেজে বাণী অর্চণা

20160213_122756সরস্বতী পূজা  হিন্দু বিদ্যা ও সঙ্গীতের দেবী সরস্বতীর আরাধনাকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠেয় একটি অন্যতম প্রধান হিন্দু উৎসব। শাস্ত্রীয় বিধান অনুসারে মাঘ মাসের শুক্লা পঞ্চমী তিথিতে সরস্বতী পূজা আয়োজিত হয়। তিথিটি শ্রীপঞ্চমী বা বসন্ত পঞ্চমী নামেও পরিচিত। বাংলাদেশে সরস্বতী পূজা উপলক্ষ্যে বিশেষ উৎসাহ উদ্দীপনা পরিলক্ষিত হয়। শ্রীপঞ্চমীর দিন অতি প্রত্যুষে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ছাত্রছাত্রীদের গৃহ ও সর্বজনীন পূজামণ্ডপে দেবী সরস্বতীর পূজা করা হয়। ধর্মপ্রাণ হিন্দু পরিবারে এই দিন শিশুদের হাতেখড়ি, ব্রাহ্মণভোজন ও পিতৃতর্পণের প্রথাও প্রচলিত। পূজার দিন সন্ধ্যায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও সর্বজনীন পূজামণ্ডপগুলিতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও আয়োজিত হয়। পূজার পরের দিনটি শীতলষষ্ঠী নামে পরিচিত।

 

স্বরসতী পূজা উদযাপনে শনিবার সাভারের গণস্বাস্থ্য সমাজ ভিত্তিক মেডিকেল কলেজে ‘বাণী অর্চণা ‘ আয়োজন করা হয়েছে । “সনাতন বিদ্যার্থী পরিষদ-গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজ” ব্যানারে  আয়োজিত এই উৎসবে মেডিকেল কলেজের সকল ব্যাচের শিক্ষার্থীরা ছাড়াও গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে । শনিবার সকালে জ্ঞান ও ললিতকলার অধিষ্ঠার্থী দেবী সরস্বতীর চরণে সনাতন ধর্মাবলম্বী শিক্ষানুরাগী ভক্তরা পুষ্পার্ঘ্য অঞ্জলি দেন। অজ্ঞতার অন্ধকার থেকে নিজেকে আলোর পথে উৎসারিত করতে দেবীর পায়ে এই প্রণতি জানান ।

 

এসময় উপস্থিত ছিলেন ‘সনাতন বিদ্যার্থী পরিষদের’ উপদেষ্টা ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. বিশ্বজিত কুমার দাস , ফিজিওথেরাপী বিভাগীয় প্রধান ডা. স্বরণরাজ পালানিভাল ,ফিজিওলজী বিভাগের ডা. বিভাস পাল সহ বিভিন্ন বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষকবৃন্দ, হাসপাতালের কর্মকর্তাবৃন্দ ।

 

পরিষদের সভাপতি প্রত্যয় চক্রবর্তী বলেন , “সবার মতো আমাদের কলেজেও প্রতি বছর বিদ্যা দেবীর আরাধনা করা হয় । আগামী বছর আরো বড় পরিসরে বাণী অর্চণা উদযাপন করা হবে ।” পূজায় দেশের সকল বিদ্যার্থীদের সুস্থতা সর্বোপরি দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় বিশেষ প্রার্থনা করা হয় । পূজা শেষে সবার মধ্যে প্রসাদ বিতরণ করা হয়। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে ।

 

লেখাপড়া২৪.কম/গণবি/তারেক/এমএএ

পছন্দের আরো পোস্ট