সিভাসুতে মাস্টার্স অব সায়েন্স ছাত্রছাত্রীদের সমারম্ভ

_DSC0103চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ বলেছেন, মাঠ পর্যায়ে গবেষণা কর্মের মাধ্যমেই জ্ঞানের ভান্ডার সমৃদ্ধ করা সম্ভব। কারণ মাঠ পর্যায়ের গবেষণা অধিক কার্যকর। তিনি বলেন, শুধু গবেষণা করলে হবে না, গবেষণার পদ্ধতি ও কলাকৌশল নিয়েও কাজ করতে হবে। উপাচার্য আরও বলেন, মাঠ পর্যায়ে গবেষণার সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয় খুব শীঘ্রই একটি ফার্ম বেইজড আউটরিচ ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠা করবে। উক্ত ক্যাম্পাসে মাস্টার্স ও পিএইচডি পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা মাঠ পর্যায়ে গবেষণার সুযোগ পাবেন।
 

আজ বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত মাস্টার্স অব সায়েন্স (এমএস) প্রোগ্রামে ভর্তিকৃত ছাত্রছাত্রীদের সমারম্ভ (ওরিয়েন্টেশন) অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য এসব বলেন।

 

 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পোর্টসিটি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. নুরল আনোয়ার বলেন, দেশের বর্ধিত জনসংখ্যার খাদ্য উৎপাদন নিশ্চিত করতে হলে গবেষণার কোন বিকল্প নেই। গবেষণার মাধ্যমেই নতুন নতুন বিষয় জাতিকে জানাতে হবে। এমএস পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা এধরণের গবেষণা কর্মে নিজেদের সম্পৃক্ত করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চশিক্ষা বিষয়ক সমন্বয়ক প্রফেসর ড. মো. কবিরুল ইসলাম খান এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ফিশারিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ নুরুল আবছার খান, ফুড সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. খন্দকার নুরুল ইসলাম, ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. আহসানুল হক, বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ এর পরিচালক ড. মাহমুদা খাতুন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. মাসুদুজ্জামান, প্রক্টর প্রফেসর গৌতম কুমার দেবনাথ।

 

 

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে জানুয়ারি-জুন ২০১৬ সেমিস্টারে মোট ৮৫ জন শিক্ষার্থী এমএস প্রোগ্রামে ভর্তি হয়েছে।

 

 

পছন্দের আরো পোস্ট