পরিচয়পত্রের অতিরিক্তি টাকা ফেরত চান রাবি শিক্ষার্থীরা

ru-9রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে আটশত টাকা নিয়ে আধুনিক পরিচয়পত্র কিনতে বাধ্য করার প্রতিবাদ জানিয়ে কার্ডের অতিরিক্ত টাকা ফেরত চেয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এন্তাজুল হকের কাছে একটি লিখিত আবেদন করেছেন শিক্ষার্থীরা। সেখানে অন্তত ছয় শতাধিক শিক্ষার্থীর স্বাক্ষর রয়েছে।

 

ওই আবেদনে শিক্ষার্থীরা উল্লেখ করেন, ‘অনার্সে চারশত ও মাস্টার্সে চারশত টাকা নিয়ে আমাদেরকে যে পরিচয়পত্র দেওয়া হয়েছে তা এখনও আমাদের কোনো কাজে আসেনি। একটি প্লাস্টিকের কার্ডের চেয়ে কোনো বাড়তি মূল্য নেই এই ডিজিটাল কার্ডের। এই কার্ড প্রদানের ক্ষেত্রে ব্যাপক অনিয়মের কারণে অনেক শিক্ষার্থী অনার্স ও মাস্টার্স শেষ করে সনদপত্র নিয়ে ক্যাম্পাস ত্যাগ করলেও তারা আটশত দিয়েও কার্ড পাননি।’

 

সেখানে আরও উল্লেখ করা হয়, ‘এই কার্ড দেওয়ার আগে রাবি প্রশাসন শিক্ষার্থীদের একটি অত্যন্ত উন্নতমানের ডিজিটাল পরিচয়পত্র দেওয়ার স্বপ্ন দেখিয়েছিল। যার মধ্য দিয়ে বহুমাত্রিক কাজের নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু আজ পর্যন্ত পরিচয়পত্রটির কোনো সুবিধা শিক্ষার্থীদের কাছে পরিলক্ষিত হয়নি। তাই পরিচয়পত্র বাবদ ইতিমধ্যে শিক্ষার্থীদের থেকে যে টাকা নেওয়ার হয়েছে কার্ড প্রতি ১০টাকা রেখে বাকী আমাদের ফেতর প্রদান করা হোক।

 

প্রসঙ্গত, ২০১২ সাল থেকে রাবিতে এই ডিজিটাল কার্ড দেওয়া শুরু করে রাবি প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সেন্টারের মাধ্যমে চারশত টাকা নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীকে এই কার্ড দেওয়া হয়।##

 

লেখাপড়া২৪.কম/রাবি/তমাল/এমএইচ-৪৭৩

পছন্দের আরো পোস্ট