উইলস লিটলে বর্ধিত বেতন প্রত্যাহারে আলটিমেটাম

nay_5917_185409রাজধানীর উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের স্কুল শাখার ছাত্রছাত্রীদের বর্ধিত মাসিক বেতন প্রত্যাহারে কর্তৃপক্ষকে ২৪ ঘণ্টা সময় বেঁধে দিয়েছেন আন্দোলনরত অভিভাবকরা। দাবি আদায় না হলে আগামী ১৩ জানুয়ারি শিক্ষামন্ত্রীকে স্মারকলিপি প্রদান এবং ১৭ জানুয়ারি লাগাতার অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা দেন তারা
রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজ অভিভাবক ফোরামে’র এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শামিমা সুলতানা বলেন, সরকারি বেতন স্কেলের পর স্কুল কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের বেতন ১৩০০ থেকে বাড়িয়ে ২১০০ টাকা করে, যা প্রায় দ্বিগুণ। বাংলা মাধ্যমের শিক্ষার্থীদের মাসিক বেতন এক ধাপে ৬০০ থেকে বেড়ে ১১০০ টাকা এবং ইংরেজি মাধ্যমে ১৯০০ থেকে ২৭৫০ টাকা হয়েছে। অথচ আইডিয়াল কিংবা ভিকারুননিসা স্কুলে বেড়েছে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা।
একই সঙ্গে অধ্যক্ষ নিয়োগ, গভর্নিং বডির নির্বাচন, শিক্ষক নিয়োগ এবং কলেজের বিভিন্ন অনিয়মে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে দুই মাসের সময় দিয়েছেন অভিভাবকরা। আইডিয়াল ও ভিকারুননিসা নূন স্কুলের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের টিউশন ও অন্যান্য ফি সমন্বয় করা এবং স্পেশাল ক্লাসের নামে ‘মাত্রাতিরিক্ত’ বেতন আদায় বন্ধ করারও দাবি জানান তারা।
ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়ম করে ৬০ জন শিক্ষক এবং ১০০ কর্মচারী নিয়োগের অভিযোগ করে অভিভাবক ফোরাম।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অভিভাবক আঞ্জুমান আরা, হাবিবুর রহমান শাহেদ, সাইফুজ্জামান, শেখ শরফুদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।
অভিযোগের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবুল হোসেন সমকালকে বলেন, অভিভাবকদের অভিযোগ মিথ্যা। স্কুলের কমিটির অনুমোদনেই কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আর প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব আয় দিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন দেওয়া হয়।#

 

লেখাপড়া২৪.কম/আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট