এশিয়ান ইউনিভার্সিটি’র ২০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

AUB Anniversaryএশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এর ২০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হল গতকাল (৪ জানুয়ারি)। ঢাকার উত্তরায় অবস্থিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে জাতীয় পতাকা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী’র আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। সকাল নয় টায় ভিসি ভবনে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে কেক কাটার আয়োজন করা হয়, উড়ানো হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম খচিত ফেস্টুনসহ বর্ণিল রঙের বেলুন; সাথে পিঠা, ফুচকা, চটপটি, মিষ্টিসহ ছিল নানা ধরণের খাবারের আয়োজন।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পর্যায়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী, অভিভাবকমন্ডলীসহ সকলের অংশগ্রহণে এক আনন্দঘণ পরিবেশের সৃষ্টি হয় এ সময়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা এবং ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. আবুল হাসান সাদেক আগত সকলের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। শিক্ষকমন্ডলী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপাচার্য মহোদয়কে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত করেন।

 
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মাননীয় উপাচার্য বলেন, এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ক্ষুদ্র পরিসরে যাত্রা শুরু করেছিল, আজ এটি প্রায় সাড়ে আট হাজার শিক্ষার্থীর পদচারণায় মুখরিত দেশের অন্যতম বৃহত্তম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। এ প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা লাভ করে দেশে এবং দেশের বাইরে গুরুত্বপূর্ণ সেক্টরে সুনাম এবং দক্ষতার সাথে আমাদের শিক্ষার্থীরা কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, আমরা অনেক পথ অতিক্রম করে এসেছি, দেশের অগনিত শুভানুধ্যায়ীদের দোয়া নিয়ে আরো অনেক পথ পাড়ি দিতে চাই।

 

১৯৯৬ সালের এই দিনটিতেই ঢাকার উসমানি মিলনায়তনে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে তৎকালীন মাননীয় পানিসম্পদ মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক এর উদ্বোধণ ঘোষণার মধ্য দিয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়। দুই দশকের দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় আজ এশিয়ান ইউনিভার্সিটি এক মহিরুহের নাম।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ড. জাফার সাদেক, ট্রেজারার অ্যাড. আবুল কালাম আজাদ, রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, এক্সাম কন্ট্রোলার কে, এম, মনিরুল ইসলামসহ সকল অনুষদের ডিন, বিভাগীয় প্রধানগণসহ শিক্ষকমন্ডলী ও শিক্ষার্থীরা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর মূল আয়োজনে অংশ্রহণ করেন।

 

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ মাসব্যাপী কর্মসূচী ঘোষণা করেছে। এ কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে আন্তঃবিভাগীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা, আন্তঃবিভাগীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট, প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পূণর্মিলনী, ফ্যামিলি ডে, শীতার্ত জনগনের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, সেমিনার, বিচিত্রানুষ্ঠান ইত্যাদি।

 

এ বছর এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ‘টুয়ার্ডস রিসার্চ ইইউনিভার্সিটি’ বর্ষ ঘোষণা করে এবং সকল শিক্ষকমন্ডলী গবেষণা কর্মে বিশেষ অবদান রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

 

লেখাপড়া২৪.কম/এশিয়ান/রনি/এমএএ-০৫৫১

পছন্দের আরো পোস্ট