রাবি ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে তদন্ত কমিটি

ruরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) রোকেয়া হলের এক আবাসিক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার ৬ দিনের মাথায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন এ তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

 

কমিটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ছাদেকুল আরেফিনকে আহ্বায়ক করা হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক তারিকুল হাসান ও সিন্ডিকেট সদস্য ইনফরমেশন সায়েন্স এন্ড লাইব্রেরী ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. উজ্জল হোসেনকে সদস্য করা হয়।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের প্রশাসক অধ্যাপক ইলিয়াছ হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের আবাসিক শিক্ষক এবং ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপকের বিরুদ্ধে এক ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার পর শুক্রবার উপাচার্য একটি কমিটি গঠন করেন। কমিটিকে দ্রুত ঘটনা তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।’

 

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ছাদেকুল আরেফিন বলেন, ‘কমিটি গঠনের বিষয়টি আমাকে জানানো হলেও শুক্রবার অফিস বন্ধ থাকায় এখনও কাগজ হাতে পাইনি। শনিবার এ সংক্রান্ত নির্দেশনার কাগজ পাওয়ার পরই তদন্তের কাজ শুরু হবে।’

 

প্রসঙ্গত, রোকেয়া হলে ছালত্রীগের পরিচয়ে অবৈধভাবে সিট না পাওয়ায় গত ২০ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা বিভাগের (উর্দু) প্রথম বর্ষের এক ছাত্রী ওই হলের আবাসিক শিক্ষক এবং ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তোলে। এ ঘটনায়বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ওই শিক্ষকের শাস্তির দাবিতে প্রথম দিন থেকে ক্যাম্পাসে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছে। এদিকে গত ২২ ডিসেম্বর এই অভিযোগকে সম্পূর্ন মিথ্যা আখ্যা দিয়ে রোকেয়া হলের আবাসিক দুইজন শিক্ষক, ১০জন কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং ৩২০জন ছাত্রীর স্বাক্ষর সংবলিত একটি প্রতিবাদলিপি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে দেওয়া হয়েছে।#

 

 

লেখাপড়া২৪.কম/রাবি/তমাল/আরএইচ-৫১৩১

পছন্দের আরো পোস্ট