বাকৃবিতে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ শীর্ষক কর্মশালা

BAU IUCN Seminar Picবাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ শীর্ষক দিনব্যাপী এক আন্তর্জাতিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

সোমবার (৭ ডিসেম্বর ২০১৫) সকালে সৈয়দ নজরুল ইসলাম মিলনায়নে বাকৃবির মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ ও আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ সংস্থার (আইইউসিএন) যৌথ উদ্যোগে ওই কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

 

মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সুভাষ চন্দ্র চক্রবর্তী সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাকৃবি উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আলী আকবর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বন বিভাগের প্রকল্প পরিচালক মো. আকবর হোসেন। কর্মশালায় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন আইইউসিএন এর ক্রাস্টাসিয়ান গ্রুপ প্রধান প্রফেসর ড. মোস্তফা আলী রেজা হোসেন এবং কর্মশালার মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আপডেটিং স্পেসিস রেড লিস্ট অফ বাংলাদেশের প্রকল্প ব্যবস্থাপক জনাব মুহাম্মদ সাহেদ মাহাবুব চৌধুরী।

 

কর্মশালায় বক্তারা জানান, বিশ্ব উষ্ণতা ও মানব সৃষ্ট পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণে আমাদের দেশের জীববৈচিত্র্য হারিয়ে যাচ্ছে। পর্যাপ্ত বাসস্থান ও সংরক্ষণের অভাবে সময়ের সাথে আমাদের দেশের প্রায় ৩৪ শতাংশ জীববৈচিত্র্য হুমকির সম্মুখীন। পাশাপাশি দেশীয় ওই জীববৈচিত্র্যের ১৮ শতাংশ আজও আমাদের অজানা। দেশীয় জীববৈচিত্র্য সম্পর্কে ব্যক্তিগত ও জাতীয় পর্যায়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে ১ হাজার ৭’শ প্রাণীর তালিকা প্রকাশ করবে আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ সংস্থা (আইইউসিএন)।

 

কর্মশালায় বিভিন্ন বিষয়ের উপর আটটি বৈজ্ঞানিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মোস্তফা আলী রেজা হোসেন, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ গোলাম রাব্বানি, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ওবায়দুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. একেএম নওশাদ আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মো. নিয়ামুল নাসের, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মনোয়ার হোসেইন, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মোস্তফা ফিরোজ এবং বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটের ড. মো. ইনামুল হক।

 

আইইউসিএন এর বাংলাদেশ প্রতিনিধি ইশতিয়াক উদ্দিন আহমদ বলেন, ‘আমরা চেয়েছি এই প্রকল্পের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রজাতির অবস্থা যেমন নিরূপণ করা যাবে তেমনি এ বিষয়ক জ্ঞানও যেন আমরা সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারি। বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে বন অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘স্ট্রেংদেনিং রিজিওনাল কো-অপারেশন ফর ওয়াইল্ডলাইফ প্রটেকশন’ প্রকল্পে বাংলাদেশের রেড লিস্টভূক্ত সাতটি গ্রুপের আনুমানিক ১,৭০০ প্রজাতির প্রাণীর অবস্থা যাচাইয়ের তথ্যাদি আগামি মে ২০১৬ এর মধ্যে হালনাগাদ করা হবে।

 

আইইউসিএন এর ক্রাস্টাসিয়ান গ্রুপের প্রধান অধ্যাপক ড. মোস্তফা আলী রেজা হোসেন বলেন, আমরা ৬ টি ক্যাটাগরিতে প্রায় ১৪১ টি ক্রাস্টাসিয়ান প্রজাতিকে যাচাই বাছাই করে সনাক্ত করেছি। আশা করছি আগামী বছরের শুরুতেই আমরা লাল বই আকারে সেগুলো প্রকাশ করতে পারবো।#

 

 

লেখাপড়া২৪.কম/বাকৃবি/আর/আরএইচ-৪৮৫১

পছন্দের আরো পোস্ট