টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক ৪দিন ব্যাপী বাংলাদেশ সামিট শুরু

গ্লোবাল সিটিজেনস ফোরাম অন সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্টের উদ্যোগে টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক ৪দিন ব্যাপী “বাংলাদেশ সামিট” আজ ১৭ আগস্ট ২০১৪ রবিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে শুরু হয়েছে।

 

duঅর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে এই সামিট উদ্বোধন করেন।

 

গ্লোবাল সিটিজেন্স ফোরাম অন সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্টের আহবায়ক ড. কাজী খলীকুজ্জামান আহমদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক ও ইউএনএফপিএ বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি Ms. Argentina Matavel Piccin বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

 

স্বাগত বক্তব্য দেন এমিনেন্স-এর সিইও ও প্রতিষ্ঠাতা ড. মো: শামীম হায়দার তালুকদার।

 

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, সামাজিক বৈষম্য নিরসন ও টেকসই উন্নয়ন অর্জনের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করছে। ফলে বাংলাদেশ ক্রমেই বিশ্ব মানবসম্পদ উন্নয়নের সূচকে এগিয়ে যাচ্ছে। জনগনের মাথাপিছু আয় ও ক্রয়ক্ষমতা বেড়ে চলেছে। বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য-আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে সুখী ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

 

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক টেকসই উন্নয়ন বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি এবং জনগনের মানসিকতার পরিবর্তন ঘটানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, টেকসই উন্নয়নের জন্য মানব সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা, সামাজিক বৈষম্য নিরসন, বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাব মোকাবেলা এবং শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়ন ঘটাতে হবে। এ লক্ষ্যে তিনি সকলকে একযোগে কাজ করার আহবান জানান।

 

উল্লেখ্য, টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক বাংলাদেশ সামিটে দেশ-বিদেশের ২৬টি সংস্থা অংশগ্রহণ করছে। সামিটের লক্ষ্য হলো – মানবকেন্দ্রিক ও মনুষ্যবান্ধব সমন্বিত কর্মসূচী গ্রহণের মাধ্যমে সামাজিক, অর্থনৈতিক ও পরিবেশগত টেকসই ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়ন করা। আগামী ১৯ আগস্ট এই সামিট শেষ হবে।

সুউ ফয়সাল

পছন্দের আরো পোস্ট