শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশ্বে সর্বাধিক অর্থ বরাদ্দকারী দেশ সৌদী আরব

images (9)সৌদী আরব শিক্ষা খাতে বাজেটে ২০ হাজার ৪০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। দেশের অর্ধেক জনসংখ্যা ২৫ বছরের কম বয়সী, তাই শিক্ষা ক্ষেত্রে এই বরাদ্দ অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে সংশ্লিষ্ট মহলের অভিমত। তাদের মতে, সৌদী আরব শিক্ষা ক্ষেত্রে সর্বাধিক গুরুত্ব আরোপ করেছে। মানব সম্পদকে কাজে লাগিয়ে  দীর্ঘস্থায়ী প্রবৃদ্ধি এবং একটি জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতি গঠনে প্রতিশ্র“তিবদ্ধ। শিক্ষা ব্যবস্থার সংস্কারের লক্ষ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দশ সালা পরিকল্পনা (২০০৪-২০১৪) এর প্রকৃষ্ট উদাহরণ। গত ৪ বছরে শিক্ষা ক্ষেত্রে বরাদ্দ নাটকীয়ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০০৮ সালে শিক্ষা ক্ষেত্রে বরাদ্দের পরিমাণ ছিলো ১০৫ বিলিয়ন সৌদী রিয়াল, ২০০৯ সালে ১১২ বিলিয়ন, ২০১০ সালে ১৩৭ বিলিয়ন, ২০১১ সালে ১৫০ বিলিয়ন এবং ২০১২ সালে সর্বোচ্চ ২০৪ বিলিয়ন সৌদী রিয়াল অর্থাৎ ২০ হাজার ৪০০ কোটি টাকা। ২০০৯ সালে বিশ্ব ব্যাংকের উপাত্ত অনুসারে, ১৯৭০ সালের বাজেটে শিক্ষা খাতে বরাদ্দ ছিলো ৬৬৬ মিলিয়ন সৌদী রিয়াল অর্থাৎ মোট বাজেটের শতকরা ৯.৮ ভাগ। তখন পুরুষের শিক্ষার হার ছিলো শতকরা ১৫ ভাগ।

images (4)বর্তমানে শিক্ষা ক্ষেত্রে বাজেটের ২৫ শতাংশ বরাদ্দ করা হয়েছে এবং শিক্ষার হার দাঁড়িয়েছে ৯৬ দশমিক ৫ শতাংশ। শিক্ষা ক্ষেত্রে বাজেটের প্রায় ২৫ শতাংশ বরাদ্দের বিষয়টি রাজ্যের একটি সাহসী ও দূরদর্শী পদক্ষেপ। অধিকাংশ উন্নত দেশের বাজেটে শিক্ষা ক্ষেত্রে বাজেটের ১০ শতাংশ অর্থাৎ জিডিপি’র ৫ শতাংশের বেশী বরাদ্দ করা হয় না। সেক্ষেত্রে সৌদী আরব বিশ্বের মধ্যে সর্বোচ্চ অর্থাৎ গড়ে শতকরা ১০ ভাগ অর্থ বরাদ্দ করছে। কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ের সালেহ আবদুল করিম বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে এই বিপুল বরাদ্দ আমাদের জাতীয় উন্নয়নকে সঠিক আকৃতি প্রদান করবে। একই বিশ্ববিদ্যালয়ের মোহাম্মদ লোকমান বলেন, উচ্চ শিক্ষা ক্ষেত্রে আমাদের আরো অধিক গুরুত্ব দেয়া প্রয়োজন। আন্ডার গ্রাজুয়েট কোসৃ সমূহে যথেষ্ট সৌদী শিক্ষার্থী থাকলেও উচ্চ শিক্ষায় এ সংখ্যা হ্রাস পাচ্ছে। অনেক শিক্ষার্থী স্কলারশীপের সুবাদে পড়াশোনার জন্য বিদেশ চলে যাওয়ায় কিংবা স্থানীয় বাজারে চাকুরী গ্রহণ করায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষাক্ষেত্রে সর্বশেষ বাজেটের সিংহভাগ অর্থাৎ ৯.৪ বিলিয়ন সৌদী রিয়াল বরাদ্দ করা হয়েছে রিয়াদের কিং সৌদ ইউনিভার্সিটির জন্য। জেদ্দার কিং আবদুল আজিজ ইউনিভার্সিটি পাবে ৫.৭ বিরিয়ন, এছাড়া রিয়াদের ইমাম মোহাম্মদ বিন সৌদ ইসরামিক ইউনিভার্সিটি ৩.৮ বিলিয়ন ডলার এবঙ দাহরানের কিং ফাহদ ইউনিভার্সিটি অব পেট্রোলিয়াম এন্ড মিনারেলস পাবে ১.৩ বিলিয়ন সৌদী রিয়াল।

imagesএকটি বড়ো অংকের অর্থ ব্যয় হবে রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চলের অবকাঠামো উন্নয়নের কাজে। শিক্ষা অবকাঠামো প্রকল্পসমূহে বিপুল অর্থ ব্যয় প্রচুর কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে। শিক্ষা ক্ষেত্রে মানোন্নয়নের পাশাপাশি সরকার সৌদী জনগণকে বৃত্তি প্রদানপূর্বক বিদেশে শিক্ষা গ্রহণেও উৎসাহিত করছে। বাদশাহ আবদুল্লাহ বৃত্তি কর্মসূচীর জন্য যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, জার্মানী, কানাডা, ইতালী, স্পেন, নেদারল্যান্ড, অষ্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ফ্রান্স, জাপান, মালয়েশিয়া, চীন, ভারত, সিঙ্গাপুর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মতো দেশের নামী  দামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার জন্য আবেদনকারী সৌদী শিক্ষার্থীদের ৭ বিলিয়নেরও বেশী সৌদী রিয়াল বরাদ্দ করেছেন। সৌদী সরকার গত কয়েক বছরে ১৮ হাজারেরও বেশী ছত্রছাত্রীকে সহায়তা প্রদান করেছে এবং সাড়ে ৭ হাজার ছাত্রছাত্রী কিং আবদুল্লাহ বৃত্তি কর্মসূচীর অধীনে তাদের  শিক্ষা কোর্স সম্পন্ন করেছে। নারী শিক্ষা ক্ষেত্রেও  এ সময় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। ১৯৭০ সালে নারী শিক্ষার হার ছিল মাত্র ২ ভাগ। বর্তমানে নারীরা পুরুষদের সাথে প্রতিযোগিতা করছে। ২০০৯ সালে মহিলাদের জন্য রিয়াদে প্রিন্সেস নূরা বিনতে আবদুল রহমান ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠিত হয়। তখন থেকে॥ইে বিশ্ববিদ্যালয়টি নারী শিক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।

images (6)শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষা ক্ষেত্রে বিভিন্ন সংস্কার কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। এটা গণিত ও বিজ্ঞানের কারিকুলাম ও সিলেবাস সংশোধন ও পরিমার্জন ব্যবস্থা চালু করেছে। জোর দিচ্ছে ইংরেজী ভাষা শিক্ষায়। শিক্ষা ক্ষেত্রে সংখ্যাগত পরিমাণ থেকে গুণগত মানের দিকে অধিক গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।  কেজি থেকে মাধ্যমিক পর্যায় পর্যন্ত প্রায় ৫২ লাখ শিক্ষার্থীর জন্য প্রায় ৩৩ হাজার স্কুলে প্রায় ৩ লাখ ক্লাস রুম রয়েছে। এছাড়া আছে বিশেষ ও বয়স্ক শিক্ষা ব্যবস্থা। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষাকে শিক্ষার মেরুদন্ড হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। বর্তমানে সৌদী আরবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ২৪ টি। ১৯৫৭ সালে রিয়াদে স্থাপিত হয় কিং সৌদ ইউনিভার্সিটি। এটি দেশের সবচেয়ে প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয়। ৫০৮ টি কলেজ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এগুলোর অধিভুক্ত। জেদ্দার কিং আবদুল আজিজ ইউনিভার্সিটিতে সর্বাধিক শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে। গত শিক্ষাবর্ষে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো ১৩ হাজারেরও বেশী। গত কয়েক বছরে সৌদী বাদশাহ আবদুল্লাহ রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চলে অনেকগুলো বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছেন।

পছন্দের আরো পোস্ট