জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের নতুন মিলনায়তনের উদ্বোধন

লেখক ও প্রকাশকদের মাঝে মিলন না হলে ভালো বই বাজারে আসবে না বলে মন্তব্য করেছেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি।
সোমবার বিকেলে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের নতুন মিলনায়তনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, এই জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রে অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে। জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র উদ্বোধনের পর থেকেই লেখক ও প্রকাশকরা নিয়মিত আসতেন। কিন্ত এখন আসেন না। কারণ, গ্রন্থকেন্দ্র ঘিরে বাণিজ্যিক কেন্দ্র গড়ে উঠেছে। যে কারণে লেখকরা এখানে আর আসতে চান না।
অনেকে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র স্থানান্তরিত করার দাবি জানালে মন্ত্রী বলেন, এ ব্যাপারে সরকারের সিদ্ধান্ত আছে। তবে এখনও সঠিকভাবে কিছু বলা যাবে না।  National_grontho_bg_228510865
সারাদেশে বইমেলার ব্যাপারে মন্ত্রী বলেন, সরকারের যে টাকা বরাদ্দ তা দিয়ে সারাদেশে বইমেলা করা সম্ভব হয় না। যে কারণে দেশের কোনো জেলায় বইমেলা সফল হয়নি।
তিনি বলেন, জেলায় জেলায় বইমেলায় শুধু এলাকার বই বিক্রেতারা উপস্থিত থাকেন। সে সকল বিক্রেতাদের সংগ্রহের কোনো ভালো বই থাকে না।
সুতরাং, বইমেলা জেলায় জেলায় না করে এবার সরকার বিভাগীয়ভাবে করার উদ্যোগ নিয়েছে। এর মধ্যে রংপুর ও বরিশাল বিভাগে বইমেলা হয়েছে। যার মধ্যে রংপুর বইমেলায় ঢাকা থেকে ৭০/৭৫ টি প্রকাশনী গিয়েছিল।
সারাদেশে অস্বচ্ছল লেখক ও গ্রন্থাগারকে অনুদানের ব্যাপারে মন্ত্রী দু:খ করে বলেন, আমার জেলায় যেসব গ্রন্থাগারের নাম দেওয়া হয়েছে, সেগুলোর মধ্যে দু’টি ছাড়া অন্য কোনোটির অস্তিত্ব নেই।
তিনি বলেন, আমার জেলায় যদি এ অবস্থা হয় তাহলে অন্য জেলায় কি হয়েছে সেটা আপনারা ভালো করেই বুঝতে পারছেন।
সংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট লেখক ও ভাষাসৈনিক আহমদ রফিক,  বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। #

 

স:আরএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট