সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্কাউট আন্দোলন ছড়িয়ে দিন: রাষ্ট্রপতি

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্কাউট আন্দোলন ছড়িয়ে দেওয়ার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেছেন, স্কাউটিং হচ্ছে দেশের তরুণ সমাজকে সুযোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার উপযুক্ত প্ল্যাটফর্ম। খবর বাসসের।
রাষ্ট্রপতি বুধবার বাংলাদেশ স্কাউটের ৪৩তম জাতীয় কাউন্সিল উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘স্কাউটের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। তবে দেশের জনসংখ্যা অনুপাতে তা এখনো কাঙ্ক্ষিত পর্যায়ে পৌঁছেনি। স্কাউটের সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কমপক্ষে একটি স্কাউট দল থাকতে হবে।’
আবদুল হামিদ স্কাউটের সংখ্যা ১৩ লাখ থেকে ১৫ লাখে বৃদ্ধির আহ্বান জানিয়ে বলেন, দেশের শিশু-কিশোর ও তরুণদের শারীরিক ও মানসিক উন্নয়নে স্কাউটিংয়ের সৃজনশীল কর্মকাণ্ড সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পৌঁছে দিতে হবে।
বাংলাদেশ স্কাউটের সভাপতি আবদুল করিমের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও বাংলাদেশ স্কাউটের প্রধান জাতীয় কমিশনার আবুল কালাম আজাদ।
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ দেশে প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় স্কাউট সদস্যদের ভূমিকার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করে বলেন, ঘূর্ণিঝড়, বন্যা এবং বিশেষ করে শীতকালে শীতার্ত মানুষের সহায়তায় তাঁদের কর্মকাণ্ড সবার কাছে প্রশংসিত হয়েছে। মাদকাসক্তির বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, মাদক দেশের তরুণ সমাজকে বিপথগামী করছে, সৃষ্টি হচ্ছে সামাজিক বিশৃঙ্খলা। তিনি আশা প্রকাশ করেন, স্কাউটরা মাদকাসক্তি ও বাল্যবিবাহ রোধে যথাযথ ভূমিকা পালন করবে।
এ বছর ১২ জন স্কাউট সিলভার টাইগার, ১৫ জন সিলভার হিলশা, তিনজন প্রেসিডেন্টস রোভার স্কাউট ও ৫৪ জন প্রেসিডেন্টস স্কাউট পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।#

স:আরএইচ
পছন্দের আরো পোস্ট