মাউশি মহাপরিচালকের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল

Fahima-Khatun

হাইকোর্টের আদেশ বাস্তবায়ন না করায় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিফতরের (মাউশি) মহাপরিচালক প্রফেসর ফাহিমা খাতুনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি করেছে আদালত।

আদালত অবমাননার এক আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি এম মোয়াজ্জেম হোসেন ও বিচারপতি মো. বদরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেন।

আদেশ পালন না করায় কেন তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল দেয় আদালত।

আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন হাইকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার তৌফিক ইনাম।

পরে তিনি জানান, ঢাকার ফজলুল হক মহিলা কলেজের গভর্নিং বডি তিনজন শিক্ষককে আইন লঙ্ঘন করে নিয়োগ দেয়। কলেজের গভর্নিং বডির তৎকালীন সভাপতি অপু উকিল এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালকের যোগসাজশে ওই তিন অবৈধ শিক্ষকের নাম এমপিওভুক্ত করা হয় এবং তাদের অবৈধভাবে সরকারি তহবিল হতে প্রতিমাসে অর্থ প্রদান করা হয়।

তিনি বলেন, তিন শিক্ষককে বেআইনিভাবে এমপিওভুক্তির বিরুদ্ধে কলেজের অধ্যক্ষ মো. নজরুল ইসলামসহ তিনজন হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন দায়ের করেন।
ওই আবেদনের শুনানি শেষে ২০১৩ সালের ১০ অক্টোবর আদালত ওই তিন শিক্ষককে সরকারি তহবিল থেকে অর্থ প্রদান না করতে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দেয়।

হাইকোর্টের এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেন মহাপরিচালক প্রফেসর ফাহিমা খাতুন। কিন্তু আপিল বিভাগ তার আবেদন খারিজ করে দেয়। ফলে হাইকোর্টের আদেশ বহাল থাকা সত্ত্বেও ফাহিমা খাতুন আদেশ বাস্তবায়ন না করায় বুধবার তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে রুল জারি করা হয়।

স: ইএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট