বাংলাদেশের গর্ব ৮ বছরের শিশু তাজুল

tajul

কিশোর বলা যায় না তাকে। বরং, শিশুর সংজ্ঞাতেই যথার্থ মানায় মোহাম্মদ এমদাদুল্লাহ তাজুল ইসলামকে।

বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করা অত্যন্ত মেধাবী এই শিশু সবচেয়ে কম বয়সী প্রতিযোগী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ‘দুবাই আন্তর্জাতিক পবিত্র কুরআন পুরস্কার’ প্রতিযোগিতায়।

৮৯ জন প্রতিযোগীর মধ্যে বিস্ময়কর প্রতিভা নিয়ে যে ২টি শিশু প্রতিযোগিতা করছে, তার মধ্যে তাজুল অন্যতম। অন্যজন অস্ট্রেলিয়ার প্রতিযোগী জুলায়বীব নোমান উদ্দিন। তার বয়স ১১ বছর।

এ বছর প্রতিযোগিতার সর্বকনিষ্ঠ শিশু বাংলাদেশের তাজুল।

বয়স ৮ বছর ৯ মাসের নিচে। গতকাল রাত সাড়ে ১০টায় সুমিষ্ট কণ্ঠে প্রথম জনসমক্ষে কোরআন তেলাওয়াত করে সে।

আয়োজনটি ১৮তম বর্ষে পদার্পন করছে এবার। স্থানীয় ও আঞ্চলিকভাবে এবং বিদেশে এ অনুষ্ঠানটি বেশ সুনাম ও দর্শপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

দুবাইয়ের সংস্কৃতি ও মানবাধিকার বিষয়ক অধিদফদরের শাসকের উপদেষ্টা ইব্রাহিম বু মেলহা জানান, বিশ্বজুড়ে পবিত্র কুরআন তিলাওয়াতের যত প্রতিযোগিতা হয়, তার মধ্যে ৮৯ জন প্রতিযোগী অংশ নেয়ার সংখ্যাটি সর্বোচ্চ।

প্রাথমিকভাবে যোগ্যতা প্রমাণের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয় সব প্রতিযোগীকে। এ বছর ৪ প্রতিযোগী অযোগ্য ঘোষিত করা হয়েছে।

দুবাই চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিতে প্রতিদিন রাত সাড়ে ১০টায় প্রতিযোগিতা শুরু হবে। সূত্র: খালিজ টাইমস।

স: ইএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট