চিকিৎসকদের অবহেলায় শিক্ষার্থীর মৃত্যুর প্রতিবাদে খুবিতে মানববন্ধন

 

Khulna University Students photo-1 (1)

খুলনা বিশ্বাবদ্যালয়ের চারুকলা ডিসিপ্লিনের ছাত্র অমিত রায়ের চিকিৎসায় অবহেলা করার প্রতিবাদে এবং নিহত ছাত্রের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ প্রত্যাহারের দাবিতে মানব বন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। আজ (রবিবার) বেলা ১১.০০টায় বিশ্বাবদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচী পালন করেছে।

খুলনা বিশ্বাবদ্যালয়ের চারুকলা ডিসিপ্লিনের ছাত্র অমিত রায় গত ২রা জুলাই বেলা ৩.৩০ মিনিটে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়। প্রথমে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ এবং পরবর্তীতে বেলা ৪.৩০ মিনিটে গাজী মেডিকেল কলেজে নিয়ে আসা হয়। দীর্ঘ চার ঘন্টা পর ডাক্তার এসে রোগীকে পর্যবেক্ষণ করে সেখানে চিকিৎসা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন এবং তাকে দ্রুত ঢাকায় পাঠানোর নির্দেশ দেন। এরপর এম্বুলেন্স যোগে ঢাকায় নেওয়ার পথে আনুমানিক রাত ১১.৩০ মিনিটে অমিতের মৃত্যু হয়। সংবাদটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌছালে শিক্ষার্থীদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। শোকাহত শিক্ষার্থীরা অমিতের মৃত্যুর জন্য গাজী মেডিকেল কলেজের অনিয়ম ও চিকিৎসকদের অবহেলাকে দায়ী করে জবাবদিহির দাবিতে রাত ১.০০ টার সময় মেডিকেল কলেজেটির সামনে হাজির হয়। ছাত্রদেও অবস্থান নেয়ার সাথে সাথেই সেখানে পুলিশ এসে অবস্থান নেয়। শান্তিপূর্ণ অবস্থানকালে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নিকট হতে সাড়া না পেয়ে এবং বৃষ্টির কারণে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে ফিরে আসে। পরদিন বৃহষ্পতিবার এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পসে শোক দিবস পালন ও কালোব্যাচ ধারণ করা হয়।

এদিকে এই ঘটনার সূত্র ধরে গতকাল (শনিবার) খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় খুলনা শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে ভাংচুর ও চিকিৎসক অপহরনের কারন দেখিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় অর্ধ শতাধিক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে গাজী মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। এছাড়া নগরীর সকল চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোতে ধর্মঘট পালন করেছে চিকিৎসকবৃন্দ।
তবে শিক্ষার্থীরা বলেছেন ভাংচুর ও চিকিৎসক অপহরনের বিষয়টি ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত । তারা জানান নিজেদের অপরাধকে ঢাকতে এ ঘৃন্য অপচেষ্টা চালিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সংবাদ সম্মেলন থেকে দাবী উত্থাপন করা হয়। দাবিসমূহ: ক) অতিদ্রুত গাজী মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ-কে চিকিৎসার অবহেলার জন্য অমিতের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদান করতে হবে। খ) খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের নামে আনিত মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগের জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দুঃখ প্রকাশ করতে হবে এবং আনিত মিথ্যা অভিযোগ প্রত্যাহার করতে হবে। গ) টাউন সার্ভিস বাসের সেই ঘাতক ড্রাইভারের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দিতে হবে ও ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

 

 

পছন্দের আরো পোস্ট