বাউফলের ২৩ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন

বিলখেলাপির অভিযোগে বাউফল উপজেলার ২৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ।

patuakhali

বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় রমজান ও ঈদুল ফিতরের ছুটির পর বিদ্যালয়ে এসে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির শিকার হতে হবে।

 

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত ২৮ জুন প্রতিটি বিদ্যালয়ে রমজানের ছুটি ঘোষণার পর ২৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

 

এসব বিদ্যালয়ে সর্বনিন্ম দুই মাস থেকে সর্বোচ্চ ১২ মাস পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

 

বাউফল পল্লী বিদ্যুতের উপমহাব্যবস্থাপক আবু বকর সিদ্দিক জানান, জুন মাস পর্যন্ত মোট ২৬টি বিদ্যালয়ের কাছে ৬০ হাজার ৮৫০ টাকা বিল পাওনা রয়েছে।

 

এর মধ্যে ৩টি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিল পরিশোধ করেছে। প্রায় ১ বছর পর্যন্ত বিল না দেয়ায় অন্য ২৩টি বিদ্যালয়ের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

 

বাউফল আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আসমা পারভীন বলেন, বিগত দিনে প্রতিটি বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেছে উপজেলা শিক্ষা অফিস।

 

এছরও পরিশোধ করার কথা ছিল। কিন্তু বরাদ্দ না আসায় বিল পরিশোধ করা যায়নি। তাই সংযোগ রক্ষা করতে নিজের পকেট থেকে বিল পরিশোধ করতে হয়েছে। যারা পকেট থেকে পরিশোধ করেননি তাদের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

 

বাউফল উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফর রহমান বলেন, উপজেলায় মোট ৬২টি বিদ্যালয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ রয়েছে। বছরে দুই বার মন্ত্রণালয় থেকে বিদ্যুৎ বিল বরাদ্দ দেয়া হয়।

 

চাহিদার তুলনায় বরাদ্দ কম দেয়ায় সব বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা যায়নি।

 

চলতি বছর ৭০ হাজার টাকা বরাদ্দ আসার পর ৩৬টি বিদ্যালয়ের বিল পরিশোধ করা হয়েছে।

 

বাকি ২৬টি বিদ্যালয়ের বিল পরিশোধের জন্য সময় প্রার্থনা করা হয়েছে। কিন্তু পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ সময় না দিয়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে।

 

 

স: ইএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট