ববিতে ক্লাশ বর্জন চলছে

শিক্ষার্থীদের ক্লাশ বর্জনের কারণে বুধবার দ্বিতীয় দিনের মতো বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিকাংশ ক্লাশ হয়নি। তবে ক্লাশ বর্জনের পক্ষে-বিপক্ষে ক্যাম্পাসে কোনো বিক্ষোভ হয়নি।
BOBI

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন সমর্থনকারী এক ছাত্রকে ছাত্রলীগ কর্মীরা মারধর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আগামী ৬ জুলাই থেকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে রমজান ও ঈদের ছুটি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. শফিউল আলম জানান, শিক্ষার্থীরা ক্লাসে যোগ না দেয়ায় বুধবারও অধিকাংশ ক্লাশ হয়নি। তবে ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি পুরোপুরি শান্ত আছে।

তিনি জানান, এমন পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগীয় প্রধানরা জরুরী সভা করেন। সভায় রমজান ও ঈদ-উল-ফিতরের ছুটি ২২ জুলাই থেকে পিছিয়ে এনে ৬ জুলাই থেকে শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র কাজী সিহাব অভিযোগ করেছে, ক্লাস বর্জন কর্মসূচির পক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ফেসবুকে প্রচারণা চালানোর অভিযোগে বুধবার বেলা ২টার দিকে তাকে মারধর করেছে ছাত্রলীগকর্মীরা।

তিনি জানান, ক্লাশ বর্জনের কর্মসূচির পক্ষে ফেসবুকে স্টাটাস দেয়ায় তাদের ফেসবুক সংগঠন থেকে বাদ দিয়েছে ওই সংগঠনের এডমিন ব্যবস্থাপনা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী মন্দিরা দাস।

৫ জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে হামলা এবং সহকারী রেজিস্ট্রার বাহাউদ্দিন গোলাপকে মারধরের ঘটনায় সোমবার ৬ ছাত্রকে সাময়িক বহিষ্কার করে সিন্ডিকেট। বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের ব্যানারে মঙ্গলবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাশ বর্জন শুরু হয়েছে।

স: ইএইচ

পছন্দের আরো পোস্ট